দেখে নিন,এক নজরে লুইস সুয়ারেজ

বিশ্বকাপের উন্মাদোনা শুরু হয়ে গেছে।ধরতে গেলে রাত পোহালেই বিশ্বকাপ শুরু।বিশ্বকাপে এবার অংশ গ্রহন করছে মোট ৩২ টি দল। একটি মাত্র বিশ্বকাপের জন্য সবাই লড়বে। বিশ্ব কাপে উরুগুয়েতেমন আলো ছড়াতে পারবে কিনা সে ব্যাপারে সন্ধে রয়েছে তবে সুয়ারেজ যে আলো ছড়াবেন সেটা সবার জানা। তবে এবার জেনে নেওয়া যাক লুইস সুয়ারেজের অজানা সব তথ্য-

নামঃ লুইস সুয়ারেজ। দেশঃ উরুগুয়ে
পজিশনঃ স্ট্রাইকার । জন্ম: ২৪ জানুয়ারি ১৯৮৭ ।
বয়সঃ ৩১ বছর।উচ্চতা: ৬ ফুট
ক্লাব: বার্সেলোনা

ক্লাব কেরিয়ার: ২০০৩-২০০৫ পর্যন্ত উরুগুয়ের ক্লাব ন্যাশনাল ডি ফুটবল’এ জুনিয়র পর্যায়ে ফুটবল খেলতেন সুয়ারেজ ২০০৫-০৬ মৌসুম পর্যন্ত। মোট ২৭ ম্যাচে ১০টি গোল করেন তিনি৷ পরে ২০০৬-০৭ নেদারল্যান্ডসের গ্রোনিনজেনের হয়ে ২৯ ম্যাচে ১০টি গোল করেন৷ ২০০৭-১১ পর্যন্ত সুয়ারেজ ডাচ ক্লাব আজাক্সের হয়ে ১১০টি ম্যাচে ৮১টি গোল করেন৷২০১১-১৪ পর্যন্ত লিভারপুলের হয়ে ১১০টি ম্যাচে ৬৯টি গোল করেন তিনি৷ ২০১৪ থেকে এখনও পর্যন্ত বার্সেলোনার হয়ে ১৩০ ম্যাচে ১১০টি গোল করেছেন উরুগুয়েন স্ট্রাইকারটি৷

আন্তর্জাতিক কেরিয়ার: ২০০৬-০৭ উরুগুয়ের অনূর্ধ্ব-২০ দলের হয়ে ৪ ম্যাচে দুইটি গোল করেন সুয়ারেজ৷ ২০১২ সালে অনূর্ধ্ব-২৩ জাতীয় দলের হয়ে ৪ ম্যাচে ৩টি গোল রয়েছে তাঁর৷ ২০০৭ থেকে এখনও পর্যন্ত উরুগুয়ের সিনিয়র দলের হয়ে ৯৮ ম্যাচে ৫১টি গোল করেন সুয়ারেজ।

ফিফা টুর্নামেন্ট: কানাডায় অনুষ্ঠিত ২০০৭ অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে স্পেনের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে ফিফা ইভেন্টে আত্মপ্রকাশ সুয়ারেজের৷ এই ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়৷ এখনও পর্যন্ত ৭০টি ফিফা ইভেন্টের ম্যাচে ৩৬টি গোল করেন৷ ৩১টি ম্যাচে জিতেছে তাঁর দল৷ ১৯টি ম্যাচ ড্র করেছে৷ হেরেছে ২০টি ম্যাচে৷

ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ (২০১০ ও ২০১৪): ৮ ম্যাচে ৫ গোল৷ জয়-৫, ড্র-২, হার-১
ওয়ার্ল্ড কাপ কোয়ালিফায়ার: ৪৮ ম্যাচে ২১ গোল৷ জয়-২০, ড্র-১৫, হার-১৩
ফিফা কনফেডারেশন কাপ (২০১৩): ৫ ম্যাচে ৩ গোল৷ জয়-২, ড্র-১, হার-২
ফিফা অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপ (২০০৭): ৪ ম্যাচে ২ গোল৷ জয়-১, ড্র-১, হার-২
ফিফা ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপ (২০১৫): ২ ম্যাচে ৫ গোল৷ জয়-২, ড্র-০, হার-০
অলিম্পিক (২০১২): ৩ ম্যাচে ০ গোল৷ জয়-১, ড্র-০, হার-২

পুরস্কার: ২০১৫ সালে বার্সার হয়ে ফিফা ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপ জেতেন৷ সর্বোচ্চ স্কোরার হয়ে গোল্ডেন বল পুরস্কার হাতে তোলেন সুয়ারেজ৷