২৬, সেপ্টেম্বর, ২০১৭, মঙ্গলবার | | ৫ মুহররম ১৪৩৯

আ'লীগ প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে সাকিব

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১২:৪৭

নিউজ ডেস্ক- আসন্ন রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সদস্য রাশেক রহমানের পক্ষে ভোট ও দোয়া চেয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। 

বুধবার রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে এক যুব সমাবেশ ও প্রীতি ম্যাচে তিনি উপস্থিত ছিলেন।  ওই অনুষ্ঠানে তিনি ভোট চান।  অনুষ্ঠানটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। 

বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে
১১টার বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি) খেলার মাঠে ক্রিকেট কথন ও কর্মশালায় অংশ নেয়ার কথা ছিল সাকিবের।  কিন্তু তাতে কোনোরূপ অংশ না নিয়ে আওয়ামীলীগের মেয়রপ্রার্থী রাশেক রহমানের পক্ষে সাফাই গেয়ে ভোট ও দোয়া চান তিনি।  মেয়রপ্রার্থীর সাফাই ও দোয়া চেয়ে সাকিব বলেন, ‌রাশেক রহমান কথা দিয়ে কথা রাখেন।  আপনারা তার জন্য দোয়া করবেন।  উনি রংপুর জেলাকে অনেক দূরে নিয়ে যেতে পারবেন। 

অথচ ওই সময়টুকুতে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে সাকিব আল হাসানের আগমণে ক্রিকেটের খুঁটিনাটি রপ্ত করার আশা নিয়ে অনুষ্ঠানে আসা কয়েক হাজার ক্রীড়ানুরাগী তরুণ-তরণীরাদের নিয়ে ব্যস্ত থাকার কথা তার।  কিন্তু তা আর হলো কই?  তাই শেষ পর্যন্ত মনের মধ্যে ক্ষোভ আর অভিমান নিয়ে ফিরে যেতে হয়েছে তরুণ-তরুণীদের। 

সাকিব এমন আচরণে শুধু রংপুরের ক্রিকেট অনুরাগীরা সমালোচনার ঝড় উঠেছে ফেসবুকেও।  ‌খেলা না শিখিয়ে ভোট চাইলেন সাকিব, ক্ষোভ আর অভিমানে ক্রীড়ানুরাগীরা।  অনেকের দাবি, একজন দেশসেরা ওপেনার হয়েও সাকিবের এমন আচরণ অগ্রহনযোগ্য।   আবার অনেকে তাকে খেলায় মনোযোগী হতেও পরামর্শ দেন। 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ্য ও রংপুর -৫ আসনের সংসদ সদস্য এইচ এন আশিকুর রহমানের ছেলে রাশেক রহমান আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের একজন মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে তার ও সাকিব আল হাসানের ছবি দিয়ে ক্রিকেট কর্মশালার কথা বলে রঙিন ব্যানার পোষ্টারে রংপুরকে সাজিয়ে এক সপ্তাহ ধরে প্রচারণা চালিয়েছেন। 

এদিকে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেতে আরো আট-নয়জন প্রচার শুরু করেছেন।  বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে এসে একজনের পক্ষে ক্রিকেটার সাকিবের দোয়া চাওয়ায় প্রার্থিতার দৌড়ে থাকা অনেকের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।