২৪, নভেম্বর, ২০১৭, শুক্রবার | | ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

রিয়াল মাদ্রিদে ফিরেই যে কান্ড ঘটালেন রোনালদো

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৮:২৪

লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ফিরে আসছে।  লিগে নিষেধাজ্ঞার কাটিয়ে সিআর সেভেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রোনালদো ফিরলেন সদর্পে ।  তার জোড়া গোলের সঙ্গে সার্জিও রামোসের একটিতে অ্যাপোয়েল নিকোশিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয় পেয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। 

বুধবার রাতে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে সাইপ্রাসের দল অ্যাপোয়েলের বিপক্ষে খুব একটা আক্রমণ শানাতে না পারলেও সময় মত গোলটা পেয়েছে রিয়ালই।  শুরুটা হয়েছে ১২ মিনিটে।  ইসকোর বানানো আক্রমণে বল পেয়ে
বামপ্রান্ত থেকে গ্যারেথ বেল সেটি ঠেলে দেন রোনালদোর দিকে, তা থেকে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়ে দিতে ভুল করেননি পর্তুগিজ অধিনায়ক। 

গোল খেয়েই রক্ষণকে আটসাট করে রিয়ালকে প্রথমার্ধে আর তেমন সুযোগ বের করতে দেয়নি অ্যাপোয়েল।  ২৫ মিনিটে চোটে মাঠ ছাড়েন মাতেও কোভাসিচ।  বদলি নামেন মিডফিল্ডার টনি ক্রুস। 

ম্যাচের ৩৪ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ হারান রোনালদো।  বেলের ক্রসে পা লাগিয়েও সাফল্য আসেনি একটু জন্য।  তাতে ওই এক গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যেতে হয় বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। 

মধ্যবিরতি থেকে ফিরে দ্বিতীয় গোলটা প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন রোনালদো।  ৪৮ মিনিটে কারভাহালের পাসে তার পা ছুঁয়ে যাওয়া বল গোললাইনে ড্রপ খেয়ে ফিরে এসেছে।  টিভি রিপ্লেতে দেখা গেছে বল ফিরেছে গোললাইনের ভেতর থেকেই।  কিন্তু গোললাইন প্রযুক্তি না থাকায় রেফারিদের কাছে আবেদন করেও সাড়া পাননি সিআর সেভেন। 

অবশ্য দুই মিনিট পরই রিয়ালকে পেনাল্টি উপহার দিয়েছে অ্যাপোয়েল।  নিজেদের বক্সে ডিফেন্ডার রবের্তো লাগোর হাতে বল লাগলে পেনাল্টি ডেকে বসেন রেফারি।  স্পটকিক থেকে ৫১ মিনিটে দলের এবং নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন রোনালদো।  যদিও টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল লাগোর হাতের উপরের অংশেই লেগেছিল। 

রিয়ালের তৃতীয় গোলটি এসেছে অধিনায়ক সার্জিও রামোসের দুর্দান্ত বাইসাইকেল কিক থেকে।  মার্সেলোর পাসে উড়ে আসা বলে মাথা ছুঁয়ে অধিনায়কের দিকে ঠেলে দেন গ্যারেথ বেল।  তা থেকে ৬১ মিনিটে রামোসের কিক প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের হাত গলে জড়িয়ে যায় জালে। 

ম্যাচের ৬৬ মিনিটে ইস্কোর ডিফেন্সচেরা পাস অ্যাপোয়েল গোলরক্ষক ওয়াটারম্যানের গা বরাবর মেরে বসায় হ্যাটট্রিক পাওয়া হয়নি রোনালদোর।  ৮৫ মিনিটেও তার একটি গোল অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেন রেফারি।  তাতে অবশ্য টানা ৭২টি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে রিয়ালের গোল করার রেকর্ড থামানো যায়নি।