১৮, অক্টোবর, ২০১৭, বুধবার | | ২৭ মুহররম ১৪৩৯

‘আমার চোখের সামনে বিএসএফ ফেলানীকে গুলি করে মারছে’

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১২:৪৪

নিউজ ডেস্ক- ভারত থেকে বাংলাদেশে আসার সময় আমার চোখের সামনে বিএসএফ তাকে ফেলানী গুলি করে মারছে বলে জানিয়েছেন ফেলানী খাতুনের বাবা নুরুল ইসলাম।  তিনি বলেন, ‘সে কাঁটাতারে অনেকক্ষণ ঝুলে ছিল।  অনেকক্ষণ পানি পানি করছে আমার সামনে।  মেয়েকে আমি বাঁচাইতে পারি নাই। ’

২৪ সেপ্টেম্বর রোববার বেলা সাড়ে তিনটায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন নুরুল ইসলাম। 

ফেলানীর বাবা বলেন, ‘দেখতে দেখতে সাত বছর হয়ে গেল, আমি এখনো বিচার পাই
নাই।  আমি কিছুই চাই না, শুধু আমার মেয়ে ফেলানী হত্যার বিচার চাই।  শুনলাম, কাল (সোমবার) ভারতের সুপ্রিম কোর্টে বিচারের শুনানি আছে।  ভারত সরকার ও বাংলাদেশ সরকারের কাছে দাবি, এই বিচার যেন গুরুত্ব পায়। ’

উল্লেখ্য, ফেলানী খাতুন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বাসিন্দা।  ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি তার বাবার সঙ্গে ভারত থেকে বাংলাদেশ আসছিলেন তিনি।  একটি বাঁশের মইয়ের সাহায্যে সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া টপকে ফেলানীর বাবা পেরিয়ে যান।  ফেলানী পার হওয়ার সময় তাকে গুলি করা হয়।  ফেলানীর মৃতদেহ প্রায় পাঁচ ঘণ্টা ঝুলেছিল কাঁটাতারের বেড়াতে। 

বিএসএফে ১৮১ নম্বর ব্যাটালিয়নের কনস্টেবল অমিয় ঘোষ ফেলানীকে গুলি করে।  পরে বিএসএফের নিজস্ব আদালতে এর বিচার হয়।  বিএসএফের আদালত অভিযুক্ত অমিয় ঘোষকে পরে নির্দোষ ঘোষণা করেন।  মামলার বিচার কার্যক্রম এখনো চলামান রয়েছে।