১৯, নভেম্বর, ২০১৭, রোববার | | ২৯ সফর ১৪৩৯

১২ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির মহা সমাবেশ

১১ নভেম্বর ২০১৭, ০১:০২

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আগামীকাল রোববার বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।  বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের গণমাধ্যম শাখার কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান বিষয়টি জানিয়েছেন। 
 
শনিবার সকাল ১১টায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শহিদ উদ্দীন চৌধুরী অ্যানি ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন ডিএমপি কার্যালয়ে গেলে তাদের অনুমতিপত্র দেওয়া হয়।   দলটির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান  এ তথ্য জানান। 

সমাবেশে
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।  শায়রুল কবির খান বলেন, ‘সব ঠিকঠাক থাকলে ম্যাডাম সমাবেশে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য দেবেন। ’

বিএনপির সূত্রগুলো বলছে, সমাবেশ থেকে বিএনপির রাজনৈতিক অবস্থান পরিষ্কার করা হবে এবং আগামী নির্বাচন নিয়ে দলের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে ইঙ্গিত মিলবে। 
 
শায়রুল কবীর জানান, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে করা আবেদনের বিষয়ে জানতে আজ শনিবার সকালে ডিএমপির কার্যালয়ে যান বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী এবং প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন।  পরে ডিএমপির পক্ষ থেকে সমাবেশের অনুমতিপত্র দেওয়া হয় তাঁদের।  সেটি নিয়ে তাঁরা দলীয় কার্যালয়ের উদ্দেশে রওনা দেন। 

‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ পালনে ৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল বিএনপি।  কিন্তু  ওই দিন সমাবেশের অনুমতি মেলেনি।  পরে ১২ নভেম্বর সমাবেশের অনুমতি চেয়ে আবেদন করে দলটি।  আজ ডিএমপির পক্ষ থেকে অনুমতি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হলো। 

এর আগে গতকাল শুক্রবার বিকেল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।  সে সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ম্যাডামের (বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া) দেশে ফেরার সময় বিমানবন্দরে যেতে নেতাকর্মীদের বাধা দেওয়া হয়।  এর পরও সেদিন কীভাবে নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছিল তা দেশবাসী দেখেছে।  এবার যদি সরকার বাধা না দেয় তাহলে লোকসমাগম অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে। ’

বিএনপির এই নেতা আরো বলেন, ‘কী প্রয়োজন বাধা দেওয়ার? সমাবেশ করতে দিন নির্বিঘ্নে।  জনগণের সমাবেশ করতে দিন।  এর পর হয়তো আপনারাও করবেন।  জনগণই সবকিছু বিচার করুক।  গণতান্ত্রিক আচরণ করুন। ’