১৮, ডিসেম্বর, ২০১৭, সোমবার | | ২৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

ক্যামেরার সামনে কেমন হয় পর্নো তারকার জীবন!

২২ নভেম্বর ২০১৭, ১০:৫৮

দেখেন সবাই।  তবে প্রকাশ্যে বলেন না।  ভারচুয়াল জগতের যেমন বাড়বাড়ন্ত তাতে বলার প্রয়োজনও নেই।  নিভৃতে, নির্জনে মনের সাধ মিটিয়ে নেওয়ার সুযোগ তো রয়েছেই।  এতেই বাড়ছে পর্ন ফিল্মের রমরমা।  বাড়ছে পর্নস্টারদের কদরও।  অল্প সময়ে বেশি অর্থ রোজগারে এ সুযোগ অনেকে ছাড়তে চান না।  এরপর শারীরিক সুখ তো থাকছেই।  পর্নস্টারদের নিয়ে এমন ধারণা অনেকেই পোষণ করে থাকেন।  তবে কল্পনা আর বাস্তবে বিস্তর ফারাক রয়েছে।  পর্দার যে দৃশ্য দর্শকরা উপভোগ করেন, তার নেপথ্যে
অনেকটা পরিশ্রম থাকে।  থাকে যন্ত্রণাও।  এমনটাই দাবি পর্নস্টার ম্যাডিসন মিসিনার। 

১০০টিরও বেশি পর্ন ভিডিওতে অভিনয় করে ফেলেছেন ৩৫ বছরের এই পর্নস্টার।  নিজের অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে তিনি বলেছেন, ক্যামেরার সামনে যৌনতা পুরো যন্ত্রের মতো হয়।  তাতে কোনও আবেগ থাকে না।  কেবল অভিনয় করে যেতে হয়।  মাঝে মধ্যে আবার সিনেমার মতো রি-টেকও দিতে হয়।  বেশিরভাগ সময়ই এই যৌনতা যন্ত্রণাদায়ক হয়।  বিভিন্ন অবস্থায় যৌনতায় লিপ্ত হতে গিয়ে আহতও হতে হয়েছে অভিনেত্রীকে।  বিশেষ করে অনস্ক্রিন যৌনসঙ্গীর যদি অভিজ্ঞতা কম থাকে। 

এক সময় তো এমনও হয়েছিল ওভারিতে সিস্ট নিয়ে যৌনতায় লিপ্ত হতে হয়েছিল মিসিনাকে।  শট চলাকালীনই আবেগের তোড়ে সেই সিস্ট ব্লাস্ট করে।  সেই যন্ত্রণা এখনও কল্পনা করতে কষ্ট হয় মিসিনার।  তবুও সে সময় যন্ত্রণা সহ্য করে ক্যামেরার সামনে শট দিয়ে যেতে হয়েছিল তাঁকে।  হ্যাঁ, এই পেশায় অর্থ প্রচুর মেলে।  আর তার টানে অনেক তরুণ-তরুণীই এদিকে আকর্ষিত হন।  তবে এখানে শরীরই সব।  তাই শরীরের দিকে বাড়তি খেয়াল রাখতে হয় বলে জানিয়েছেন প্রখ্যাত পর্নস্টার।