২০, জানুয়ারী, ২০১৮, শনিবার | | ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

আনিসুল হকের জন্য কাঁদলেন ঢাকা দক্ষিনের মেয়র সাঈদ খোকন

০১ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৮:২০

নাতির জন্ম উপলক্ষে গত ২৯ জুলাই যুক্তরাজ্যে বেড়াতে গিয়ছিলেন আনিসুল ও তাঁর স্ত্রী রুবানা হক।  সেখানে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।  আনিসুল হকের মস্তিস্কে প্রদাহজনিত রোগ ‘সেরিব্রাল ভাস্কুলাইটিস’ শনাক্ত করেন চিকিৎসকেরা।  প্রায় চারমাস চিকিৎসাধীন থাকার পর বৃহস্পতিবার তার মৃত্যুর খবর জানানো হয়।  ২০১৫ সালে আওয়ামীলীগ এর মনোনয়ন নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন আনিসুল।  দায়িত্বকালীন সময়ে নানা কাজের জন্য প্রশংসিত হয়েছিলেন তিনি। 

সদ্যপ্রয়াত
মেয়র আনিসুল হক বলিষ্ঠ ও সাহসী মানুষ ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন।  তিনি বলেন, শহরে বা সমাজে আনিসুল হকের মতো মানুষ প্রতিদিন জন্মাবে না।  তাঁর এই শূন্যতা খুব সহজে পূরণ হবে না। 

আজ শুক্রবার বিকেলে বনানীতে নিজ বাস ভবনে আনিসুল হককে স্মরণ করতে গিয়ে সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন সাঈদ খোকন।  এ সময় তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।  একপর্যায়ে তিনি কেঁদে ফেলেন। 

সাঈদ খোকন বলেন, ‌‌‌‌‘আনিস ভাইয়ের সঙ্গে আমার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল।  প্রতিদিন আমরা সকালে কুশল বিনিময় করতাম।  শহরের নানা সমস্যা কীভাবে সমাধান করা যায়, সে বিষয়ে খোলামেলা কথা বলতাম।  মানুষের সেবার মনোভাব ছিল আমাদের মধ্যে প্রকট।  তাঁর বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে আমি অনুপ্রাণিত হই।  আবার আমার বিভিন্ন কর্মকাণ্ডেও তিনি অনুপ্রাণিত হতেন।  দুজনে মিলেই দুই-আড়াই বছর সময়ে আমরা যে সমস্যা সমাধান করেছি, পরিবর্তনের ইতিবাচক ধারার সূচনা করতে সক্ষম হয়েছি।  হঠাৎ করেই এমন একটা ঘটনায় আমরা অত্যন্ত ব্যথিত।  আমরা অত্যন্ত শোকাহত। ’

ডিএসসিসির মেয়র বলেন, ‘আনিসুল হকের মৃত্যু আমাদের জন্য অনেকটাই অপ্রত্যাশিত ছিল।  হঠাৎ করেই তিনি অসুস্থ হয়ে যাবেন।  দীর্ঘদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে আমাদের ছেড়ে চলে যাবেন—এটা আমরা কখনো কল্পনাও করিনি, ভাবতেও পারিনি। ’ তিনি বলেন, ‘মানুষ সমাজে বাস করলে ভুলভ্রান্তি করেই থাকে।  তাঁর যদি কোনো ভুল হয়ে থাকে আপনারা তা ক্ষমা করে দেবেন।  আমি তাঁর ছোট ভাই হিসেবে তাঁর জন্য ক্ষমা চাইছি।  আমাদের পক্ষ থেকে ডিএনসিসির জন্য সাহায্য-সহযোগিতা থাকবে। ’