১৪, ডিসেম্বর, ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

শিশুদের ধর্ষণ করলে ফাঁসি দেয়া হবে, ঐতিহাসিক আইন পাশ

০৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১১:২৩

সারা বিশ্বেই শিশু ধর্ষণের সংখ্যা বেড়েই চলেছে।  শিশুরা হয়ত সরাসরি মোকাবেলা করতে পারে না বলেই এক শ্রেণির নরপিশাচরা শিশুদেরকে নির্যাতন করে হত্যা করে।  এর বিরুদ্ধে কঠোর আইন থাকা বাঞ্চনীয়।  এরকমই এক নজির সৃষ্টি করল ভারত।  দেশটিতে শিশু ধর্ষণের সংখ্যা মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ায় এক চরম কঠোর সিদ্ধা্ন্তই নিল। 

ভারতের নানা প্রান্তে শিশু ধর্ষণের ঘটনা বেড়েই চলেছে।  এমনকি তিন-চার বছরের শিশুও যৌন নিগ্রহের শিকার হচ্ছে।  অথচ যৌন নির্যাতনকারির জন্য
কঠিন সাজার ব্যবস্থা করতে পারে নি কোনও সরকার।  তবে মধ্যপ্রদেশ সরকার এক নজির তৈরি করেছে। 

সোমবারই মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় পাস হয়েছে ঐতিহাসিক একটি বিল।  এতে বলা হয়েছে ১২ বছর বা তার থেকে কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণ করলে ফাঁসি দেয়া হবে অপরাধীকে।  আগেই মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের মন্ত্রিসভায় অনুমোদন মিলেছিল বিলটির।   

প্রসিডেন্টের অনুমোদন মিললেই বিলটিকে আইনে পরিণত করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।  শুধু ধর্ষণই নয়, মেয়েদের উত্যক্ত করা, ধাওয়া করা এমনকি বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের জন্যও কড়া সাজার বিধান রাখা হয়েছে বিলে।  বিধানসভায় বিলটি পাস হওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান বলেছেন, যারা ১২ বছর বা তার চেয়ে কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণ করে, তারা মানুষ নয় দৈত্য।  তাদের বেঁচে থাকার কোনও অধিকার নেই।   

একাধিকবার মেয়েদের উত্যক্ত করার অভিযোগে জামিন অযোগ্য ধারায় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হবে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।  দিল্লির গণধর্ষণের পর এখনও পর্যন্ত কোনও কড়া আইন তৈরি হয় নি ভারতে।  ঘটনায় দোষীদের ফাঁসির সাজা শোনানো হলেও সেটি এখনও পর্যন্ত কার্যকর করা হয় নি।