১৫, ডিসেম্বর, ২০১৭, শুক্রবার | | ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

ইবির ভর্তি পরীক্ষায় পুলিশ আটক

০৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৯:৫৬

ইবি প্রতিনিধি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষা দিতে এসে আটক হয়েছে পুলিশের এক সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসএই)।  ওই পুলিশ সদস্যর নাম নুর মোহাম্মাদ।  বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃংঙ্খলা কমিটি সুত্রে জানা যায়।  
মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ‘সি’ ইউনিটের ১ম শিফটের পরীক্ষা দেয়ার সময় তাকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। 
জানা যায়, ওই ভর্তিচ্ছু পুলিশ তার কারিগড়ি বোর্ড থেকে পাশকৃত সনদ
দিয়ে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসে।  পরীক্ষার হলে প্রবেশের সময় তার চেহারায় বয়সের ছাপ দেখে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের দ্বায়িতরত্ব শৃংঙ্খলা কমিটির সদস্যদের সন্দেহ হয়।  পরে তারা তাকে বিশ^বিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমানের কাছে প্রেরণ করে।  বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাকে সাড়ে ৩ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে।  জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিশ^বিদ্যালয় ভর্তি নির্দেশিকা অনুযায়ী ভ্রাম্যমান আদালত সে নির্দোষ বলে জানায়।  কিন্তু তার আচার আচারনে সন্দেহ মনে হলে তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করে পুলিশে সোপর্দ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর।  
এ দিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নুর মোহাম্মদ ২০০১ সালে মাধ্যমিক এবং ২০০৩ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে পুলিশে চাকরিরত।  পরে তিনি কারিগরি বোর্ড থেকে ২০১৫ সালে মাধ্যমিক এবং ২০১৭ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করে।  পুলিশের তথ্য মতে, পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে সে পরবর্তীতে এ সনদ অর্জন করে।  
ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রতন শেখের সাথে কথা বললে তিনি বলেন,“কতৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া সে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসে।  বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন আমাদেরকে জানালে আমারা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি।  তাকে আবদালপুর ফাঁড়ি থেকে ক্লোজ করা হয়েছে বলে শুনেছি। ”

এ ব্যাপারে প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান বলেন,“বিশ^বিদ্যালয় নির্দেশনা অনুযায়ী সে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে।  তারপরেও তার আচার আচারনে আমাদের সন্দেহ হয়।  পুলিশ সদস্য হয়েও সে তথ্য গোপন করায় আমরা তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছি। ”