১৫, ডিসেম্বর, ২০১৭, শুক্রবার | | ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

ভর্তি পরীক্ষা দিতে এসে আটক পুলিশের এএসআই

০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:২৪

বয়স জালিয়াতি করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে আসা এক পুলিশ সদস্যকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। 
 
মঙ্গলবার ‘সি’ ইউনিটের প্রথম শিফটে পরীক্ষা দিতে গেলে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ থেকে তাকে আটক করা হয়। 
 
আটককৃত ওই পুলিশ সদস্যের নাম নূর মোহাম্মদ। 
 
ভর্তি পরীক্ষার শেষ দিন মানবিক ও সামাজিক অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটের প্রথম শিফটে সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত
হয়।  ওই ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের থানাধীন আবদালপুর পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই  নূর মোহাম্মদ। 
 
পরীক্ষার হলে প্রবেশের সময় তার বিষয়ে সন্দেহ হলে তাকে প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করেন ব্যবসায় অনুষদে দায়িত্বরত শিক্ষকরা। 
 
ওই অনুষদে দায়িত্বরত বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও সহকারী অধ্যাপক নাসিমুজ্জামান বলেন, হলে প্রবেশ করার সময় নূর মোহাম্মদের মূল কাগজপত্রে উল্লেখ করা বয়সের সঙ্গে মূল বয়সের অসামঞ্জস্যতা দেখা দিলে তাকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়।  তখন তার কাছে কিছু কাগজপত্র মিসিং ছিল। 
 
পরে তিনি কাগজপত্র নিয়ে পুনরায় ৯টার দিকে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করার জন্য আসেন।  তখনও নূর মোহাম্মদ পুলিশে চাকরির বিষয়টি স্বীকার করেনি।  পরে তাকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 
 
আটককৃত নূর মোহাম্মদ ২০০৩ সালে মাধ্যমিক ও ২০০৫ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে পুলিশের চাকরি নেয়।  পরে তিনি উচ্চ শিক্ষা অর্জনের জন্য কারিগরি বোর্ডের অধীনে ২০১৫ সালে মাধ্যমিক এবং ২০১৭ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদন করে। 
 
বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী নূর মোহাম্মদ ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবেন।  তবে পুলিশ সদস্য হয়েও তিনি তথ্য গোপন এবং পাবলিক পরীক্ষা আইনানুযায়ী ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে নির্দোষ সাব্যস্ত করায় তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। 
 
ইবি থানার ওসি রতন শেখ বলেন, পুলিশ সদস্য হয়েও নূর মোহাম্মদ তথ্য গোপন করেছে।  একইসঙ্গে প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া তিনি এখানে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসেন।  বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি।  তাকে আবদালপুর ফাঁড়ি থেকে ক্লোজ করা হয়েছে।