১৪, ডিসেম্বর, ২০১৭, বৃহস্পতিবার | | ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

রোবট সোফিয়াকে মানুষ্যের সমতুল্য নাগরিকত্ব দিয়ে অন্যায় করেছে সৌদি!

০৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ০২:১০

গত ২৬ অক্টোবর রিয়াদে ‘সোফিয়া’ একটি রোবটকে বিশ্বের ইতিহাসে প্রথমবারের মত নাগরিকত্ব প্রধান করে সৌদি আরব।  হংকংয়ের কোম্পানি হ্যানসন রোবোটিকস এ রোবটির নির্মাতা।  অনেকেই বলছেন, রোবট সোফিয়া যে সুবিধা বা সম্মান পাচ্ছে, তা দেশটির অনেক নাগরিকই পায় না। 

এদিকে সৌদি সরকার রোবট সোফিয়াকে নাগরিকত্ব দিয়ে মুসলিম নাগরিকদের হৃদয়ে আঘাত করেছে বলে মন্তব্য করেছে বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টি নামে একটি সংগঠন।  ৬ ডিসেম্বর, বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে
এ দাবি জানান সংগঠনটির চেয়ারম্যান মহীউদ্দিন আহমেদ। 

এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টি’র পক্ষ থেকে এ বিবৃতি দয়ে হল।  সংগঠনটির মহাসচিব মো. কামরুল আহসান স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘সৌদি সরকার রোবট সোফিয়াকে নাগরিকত্ব প্রদান করে মুসলিম নাগরিকদের হৃদয়ে আঘাত করেছে।  আমরা এই নাগরিকত্বকে নিন্দা জানাই।  তার নাগরিকত্ব যদি কোনো খ্রিস্টধর্মাবলম্বী দেশ প্রদান করত, তাহলে বিষয়টি হতো ভিন্ন। ’

ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মানুষকে সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ তাঁর ইবাদত বন্দেগি করার জন্য।  আর রোবটের সৃষ্টিকর্তা হলো ডেভিড হ্যানসন, যিনি একজন মানুষ।  মানুষকে আল্লাহ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে সৃষ্টি করে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন।  এই রোবট পরিচালিত হয় একজন মানুষ দ্বারা।  মানুষ পরিচালিত হয় একমাত্র আল্লাহ দ্বারা।  তাই রোবট কখনো মানব মর্যাদা পেতে পারে না।  তাকে এক জায়গায় দাঁড় করানো শেরেক সমতুল্য। ’