১৬, জানুয়ারী, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ২৮ রবিউস সানি ১৪৩৯

‘খালেদা বাতিল করলে কষ্ট লাগবে, এমন কিছু বলেছিলাম’- তারানা হালিম

০৮ জানুয়ারী ২০১৮, ০১:০২

দফতর বদলের পর গণমাধ্যমে ‘কষ্টের’ সংবাদ প্রচার হলেও তথ্য মন্ত্রণালয়ে যোগ দিয়ে প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভোটের আগে ‘একটি প্রত্যাশা’র জায়গা থেকে তাকে এ মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছেন। 

রোববার দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ে নিজের দায়িত্ব বুঝে নেন প্রতিমন্ত্রী।  এ সময় তথ্যমন্ত্রীসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে মতবিনিময় ও কুশল বিনিময় করেন তিনি। 

এরপর তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত
এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের তারানা হালিম বলেন, ‘ইনু ভাইয়ের সঙ্গে এক পরিবারের সদস্য হিসেবে সরকারের জন্য কাজ করব।   প্রধানমন্ত্রী যেখানে যাবেন, সেখানেই কাজ করব। ’

এর আগে মন্ত্রণালয় রদবদলের পর কয়েকটি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন তারানা হালিম।  এ সময় তিনি ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে আক্ষেপ ও দুঃখ প্রকাশ করেন বলে বেশ কিছু গণমাধ্যমে খবরও প্রকাশিত হয়।  এমনকি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের সময় দায়িত্বে না থাকা প্রসঙ্গেও নিজের কষ্টের কথা বলেন তিনি।   আজ এ বিষয়ে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। 

জবাবে তারানা হালিম বলেন, ‘দু-একজন সাংবাদিক ওই সময় আমার সঙ্গে ওই ব্যাপারে কথা বলেছিলেন।   আমার বক্তব্য খণ্ডিত আকারে প্রকাশ করা হয়েছে।   বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আগামী ২৭ থেকে ৩১ মার্চের মধ্যে উৎক্ষেপণ হবে।   সেখানে এইটার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর আইসিটি উপদেষ্টার নির্দেশে অনেক কাজ করেছি।   এখন প্রধানমন্ত্রী যদি একটা কাজ করেন, পরে খালেদা জিয়া যদি এসে সেটা বাতিল করেন, তাহলে তো স্বাভাবিকভাবেই কষ্ট লাগার কথা।   আমি ওই ধরণের কিছু বলেছিলাম।  আমাকে প্রধানমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী বানিয়েছেন।   তিনি যেখানে কাজ করতে বলবেন, সেখানেই কাজ করব। ’

এ সময় নিজের আগের দায়িত্ব সম্পর্কে কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।   বলেন, ‘আমি যখন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে ছিলাম, তখন মানুষের থ্রিজি সম্পর্কে কোনো ধারণা ছিল না।   আমরা থ্রিজি থেকে ফোরজিতে পদার্পণ করেছি।   বায়োমেট্রিক নিবন্ধন সম্পন্ন করেছি।   ডাক বিভাগে সফলতা এনেছি।  স্যাটেলাইট সম্পর্কে আমাদের দেশের মানুষের কোনো ধারণাই ছিল না।  সেখানেও আমরা সফল হতে যাচ্ছি।  এগুলো সবই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সজীব ওয়াজেদ জয়ের অবদানে।  তাঁদের উৎসাহ ও সহযোগিতায় সফল হয়েছি। ’

ব্রিফিংয়ে উপস্থিত তথ্যমন্ত্রী স্বাগত জানান তারানা হালিমকে।  তিনি বলেন, ‘তাঁর (তারানা হালিম) কাজের অনেক দক্ষতা-সফলতা আছে।  আর এই দক্ষতা এখানেও তিনি কাজে লাগাবেন।  আমরা এখানে একত্রে কাজ করে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখব। ’