১৬, জানুয়ারী, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ২৮ রবিউস সানি ১৪৩৯

আগামী জাতীয় নির্বাচনই এরশাদের শেষ নির্বাচন

০৯ জানুয়ারী ২০১৮, ০৫:০৭

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ঘোষণা দিয়েছেন জীবনে শেষ নির্বাচন করতে যাচ্ছেন তিনি।  আগামী জাতীয় নির্বাচন ‘জীবনের শেষ নির্বাচন’ বলে জানালেন এরশাদ।  তাই মরার আগে তার দলকে ক্ষমতায় রেখে যেতে চান তিনি। 

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘জাতীয় পার্টির ৯০০ আসনে প্রাথী দেওয়ার ক্ষমতা আছে।  এটাই আমার জীবনের শেষ নির্বাচন, মরার আগে জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় রেখে যেতে চাই। ’

রাজধাণী ঢাকায় ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স
মিলনায়তনে মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় পার্টির যৌথসভায় তিনি এসব কথা বলেন। 

এসময় এরশাদ বলেন, ‘বর্তমানে দেশের অবস্থা ভালো না।  আমার ধারণা সামনে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।  আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কাছে এদেশের মানুষ নিরাপদ নয়। ’ ‘জাতীয় পার্টি খেলনা নয়’ উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, ‘আমাদের ছাড়া আগামী নির্বাচনে কোনো দল ক্ষমতায় যেতে পারবে না। ’

নিজেদের সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হওয়ার নির্দেশ দিয়ে এরশাদ বলেন, ‘আমাদের দলের আরও সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি করতে হবে।  কারণ দুর্বলের সঙ্গে কেউ হাত মেলায় না।  শক্তি বৃদ্ধি পেলে সবাই আমাদের সঙ্গে জোট করতে হাত এগিয়ে দিবে। ’

নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয় এরশাদ বলেন আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে ৫ লাখ লোকের সমাবেশ করে ক্ষমতার জানান দিতে হবে। 

এসময় তিনি বিএনপি চেয়ারপারমন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩৭ মামলা হয়েছে উল্লেখ করে আরও বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ৪২টি মামলা হয়েছিল, খালেদা জিয়ার এখনও ৫টা মামলা বাকি আছে। ’

জাতীয় পার্টির যৌথ সভায় উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন বাবলু, পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু, জাতীয় পার্টির ঢাকা মহানগর সদস্য ও সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম প্রমুখ।