২৩, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, শুক্রবার | | ৭ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

জিম্বাবুয়ের ঝড়ে কাঁপছে হাথুরুর শ্রীলঙ্কা

১৭ জানুয়ারী ২০১৮, ০৫:০৬

বাংলাদেশের বিপক্ষে হাফসেঞ্চুরী করেছিলেন।  কিন্তু বাংলাদেশি বোলারদের ঠিক বুঝে উঠতে পারেননি।  সেজন্য হাফসেঞ্চুরী করলেও খেলতে হয়েছিল ধীর গতির ইনিংস।   দলও করেছিল মাত্র ১৭০ রান।  তবে প্রতিপক্ষ পাল্টাতেই পাল্টে গেলেন সিকান্দার রাজা।  শ্রীলঙ্কাকে পেয়েই জ্বলে উঠলেন এই ব্যাটসম্যান।  আর তার ঝড়ো ব্যাটিংয়েই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৯০ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়ে দিল গ্রায়েম ক্রেমারের দল। 

টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে ৭৫ রানের উদ্বোধনী জুটি
গড়েন মাসাকাদজা ও সুলোমন মিরে।  পেরেরার বলে ৩৪ রান করে মিরে আউট হলে ভাঙ্গে এই জুটি। 

এরপর অভিজ্ঞ টেইলরকে নিয়ে আবারো দারুন ভাবে এগিয়ে যেতে থাকেন মাসাকাদজা। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৫৭ রান তুলে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যান তারা।   তবে সেঞ্চুরী থেকে ২৩ রান দূরে থাকতে দুর্ভাগ্য জনক রান আউট হয়ে মাসকাদজা ফিরে গেলে ভাঙ্গে এই জুটি মাসাকদজ ৮৩ বলে ৭৩ করেন।   

১৬৯ রানে চার উইকেট হারানো জিম্বাবুয়েকে এরপর একাই টানতে থাকেন সিকান্দার রাজা।  প্রথমে ওয়ালার (২৯) ও পরে পিটার মুর (১৯) এর সাথে দুটি জুটিতে দলকে তিনশ ছু্ই ছুই রান এনে দেন রাজা।   শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা রাজা রাজার মতই রাজকীয় ইনিংস খেলে ৬৭ বলে ৮১ রানে অপরাজিত থাকেন। 

এদিকে জিম্বাবুয়ের দেয়ে টার্গেটে খেলতে নেমে শুরু ভালো শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কা।  কিন্তু সেটা ধরে রাখতে পারেন নি তারা।  দলের ৪৬ রানে প্রথম হোসট খায়।  ৪৬ রানে উপুল থারাঙ্গা মাত্র ১৭ বলে ১১ রান করে ফিরে যান।  তিনে ব্যাট করতে নেমে ৪ বলে খেললেও কোন রান করতে পারেননি কুশল মেন্ডিস।  ক্রিজে আছেন ওপেনার কুশল পেরেরা ও অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। 

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্তু ১১.২ ওভারে ২ উইকেটে ৬৫ রান করেছে শ্রীলঙ্কা।  কুশল পেরেরা ৫২ রান ও অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ২ করে ক্রিজে রয়েছেন। 

একাদশ
শ্রীলঙ্কা :
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ (অধিনায়ক), উপুল থারাঙ্গা, কুশল মেন্ডিস, কুশল পেরে্রা, আসেলা গুনারত্নে, আকিলা ধনাঞ্জয়া, সুরঙ্গা লাকমাল, দুশমান্ত চামিরা, থিসারা পেরেরা, দিনেশ চান্দিমাল ও ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। 

জিম্বাবুয়ে : গ্রায়েম ক্রেমার (অধিনায়ক), হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, সলোমন মিরে, ব্রেন্ডন টেলর, ক্রেইগ আরভিন, ম্যালকম ওয়ালার, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, কাইল জার্ভিস, তেন্ডাই চাতারা ও ব্লেসিং মেজারাবানি।