১৯, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, সোমবার | | ৩ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

সুন্দরী মহিলাদের ফাঁদ পেতে অভিনব কান্ড!

২৯ জানুয়ারী ২০১৮, ১২:১০

মহাসড়কে সুন্দরী মহিলাকে টোপ হিসাবে খাড়া করে ট্রাক হাইজ্যাক থেকে সর্বস্ব লুঠ করার একটি দলকে গ্রেফতার করল ভারতের বর্ধমান থানার পুলিশ।  গ্রেফতার ৭ জনের মধ্যে রয়েছে এক মহিলাও!

এক ট্রাক চালকের দেওয়া খবরের সূত্র ধরে বর্ধমান থানার পুলিশ লাকুর্ডি এলাকার একটি হিমঘরের পাশ থেকে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে।  ধৃতদের নাম- শেখ আমির, জয়ন্ত বাগ, শেখ আকাশ, কিশোর দাস, সাহেব ওরফে শ্রীজিত দেব, আনিস সেখ ও নাগরানি মোদালিয়া।  নাগরানির বাড়ি হুগলীর চুঁচুড়ার দোলবাড়িতে। 
বাকিদের বাড়ি বড়বাজার, বাজেপ্রতাপপুর মালিরবাগান, দুবরাজদিঘী, তিনকোণিয়া গুডসেড রোড ও সর্বমঙ্গলাপাড়ায়।  ধৃতদের কাছ থেকে ভোজালি, রড, লাঠি উদ্ধার করেছে পুলিশ। 
 
জেরায় ধৃতরা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে যে- ওই সুন্দরী মহিলাকে তারা ‘টোপ’ হিসাবে ব্যবহার করতো৷ মাঝ রাস্তায় একাকী মহিলাকে দেখে তাঁর খপ্পরে পড়তেন লরি চালকেরা৷ তারপর ওই মহিলা লরি চালকদের নির্জন জায়গায় নিয়ে যেত৷ সেখানে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকত দলের অন্যরা।  চালককে নিয়ে যাওয়া মাত্র তারা ঝাঁপিয়ে পড়ে চালকের কাছ থেকে টাকা পয়সা কেড়ে নিত৷ এমনকি আস্ত ট্রাক হাইজ্যাকের ঘটনাও ঘটেছে৷

এই দুষ্কৃতী চক্রের পাশাপাশি শনিবার রাত্রে রায়না থানার পুলিশ ডাকাত সন্দেহে দুজনকে গ্রেফতার করেছে।  ধৃতদের নাম রাকেশ মাল ও বাসুদেব সিং।  রাকেশের বাড়ি রায়নার মালপাড়ায় এবং বাসুদেবের বাড়ি সিপতা গ্রামে।  ধৃতদের কাছ থেকে ভোজালি, রড পাওয়া গেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। 

শনিবার পোলেমপুর-জামালপুর রুটের শখের ডাঙায় দামোদরের চড়ে ৫-৬জনের একটি দল সন্দেহজনক ভাবে ঘোরাঘুরি করছিল।  খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে হানা দিয়ে ২জনকে ধরলেও বাকিরা পালিয়ে যায়।  ধৃতদের জেরা করে পুলিশ বাকিদের হদিশ জানার চেষ্টা করছে৷