১৯, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, সোমবার | | ৩ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

খালেদা জিয়াকে একাধিক মামলায় আটক দেখানো হয়নি, দেখানো হবেও না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৬:০৫

গত বৃহস্পতিবার ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।  জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাশাপাশি ৩৪টি মামলা রয়েছে।  ৪টি মামলায় আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।  সেসব মামলায় খালেদা জিয়াকে আটক দেখানো হয়েছে কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যমে প্রচার হচ্ছে। 

তবে এমন খবরেক ভুল ইনফরমেশন বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।  ‘বিএনপি চেয়ারপসন বেগম খালেদা জিয়ার নামে যেসব মামলার ওয়ারেন্ট
আছে সেসব মামলায় তাকে এখনো আটক দেখানো হয়নি বা দেখানো হবেও না।  কয়েকদিন ধরে যেটা গণমাধ্যমে প্রচার হচ্ছে এটা ভুল ইনফরমেশন ছিল। ’

মঙ্গলবার সচিবালয়ে তার নিজ দফতরে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী। 

তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া শুধুমাত্র জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় কারাগারে রয়েছেন।  উনি আদালত কর্তৃক যে মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়েছেন সেই মামলাযতেই কারাবন্দী আছেন।  এছাড়া অন্য কোনো মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়নি।  বা এ ধরণের কোনো কিছু আমলে আনা হয়নি। ’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘তার (খালেদা জিয়া) নামে আরও দুটি মামলা রয়েছে, সেসব মামলায় তিনি যথাসময়ে আদালতে যাবেন।  এখানে আমাদের করার কিছু নেই।  আর দুটি মামলায় জামিনে আছেন।  তার নামে যেসব মামলা আছে যেমন শাহবাগ থানার একটি ও বড় পুকুরিয়া কয়লা খনি মামলায় চলতি মাসের ১৮ তারিখে হাজিরা দিতে যাবেন। ’

তবে যেসব মামলায় পরোয়ানা রয়েছে সেগুলোতে তাকে গ্রেফতার দেখানো হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দেখুন আদালতই ‌সিদ্ধান্ত নেবেন কোন মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হবে। ’

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে খালেদা জিয়ার কারাবাস দীর্ঘায়িত করতে সরকার চেষ্টা করছে এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার অতি উৎসাহী হয়ে কোনো কিছুই করছে না।  বরং আদালত যেভাবে নির্দেশনা দেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বা সরকার তার বাইরে যায়নি।  আমরা শুধু আদালতের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছি। ’