২৩, ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, শুক্রবার | | ৭ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

নিষিদ্ধের কবলে পড়তে যাচ্ছে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট!

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৯:০৫

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টটি তিন দিনেই শেষ হয়ে যায়।  মূলত পিচের কারণে বোলাররা ভালো সুবিধা করতে পারলেও ব্যাটসম্যানরা সুবিধা করতে পারেনি।  তিন দিনে ৬৮১ রানে উইকেট পড়েছে ৪০টি।  যেখানে ২১৫ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।  সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান রোশেন সিলভার করা অপরাজিত ৭০ রান। 

আর তাই আইসিসির এলিট প্যানেলের ম্যাচ রেফারি ডেভিড বুন তার প্রতিবেদনে মিরপুরের পিচকে 'বিলো অ্যাভারেজ' বলে
উল্লেখ করেছেন।  তিনি তার প্রিবেদনে জানান, 'প্রথম দিন থেকেই বল পিচের উপরিভাগ ভেঙে দিচ্ছিল।  তাতে পুরো ম্যাচজুড়েই অসম বাউন্স দেখা গেছে।  সাথে ছিল টার্ন যা মাঝে মাঝে ছিল খুবই প্রকট।  ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বীতা এনে দিয়েছিল পিচ কিন্তু তা বোলারদের পক্ষেই গিয়েছে।  ফলে ব্যাটসম্যানরা ভাল করার যথার্থ সুযোগ পাননি। ' আর এ কারণেই বুন মিরপুরের পিচকে 'সাধারণের চেয়ে নিম্নমানের' হিসেবে রেটিং দিয়েছেন।  ফলে আরো একটি ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হয়েছে ভেন্যুটির কপালে। 

পিচ নিয়ে মোট ছয় ধরনের রেটিং আছে।  এই ছয়টি রেটিং হচ্ছে যথাক্রমে: ১. ভেরি গুড (খুব ভালো), ২. গুড (ভালো), ৩. অ্যাভারেজ (গড়পড়তা), ৪. বিলো অ্যাভারেজ (গড়পড়তার চেয়ে খারাপ), ৫. পুওর (খারাপ), ৬. আনফিট (খেলার অযোগ্য)।  আগামী চার বছরে আরও ২টি ডিমেরিট পয়েন্ট পেলে মিরপুরে ১২ মাসের জন্য হবে না কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ।  আর তাই বলা যায় বিসিবিকে কড়া এক বার্তা দিল আইসিসি।