২৫, সেপ্টেম্বর, ২০১৭, সোমবার | | ৪ মুহররম ১৪৩৯

ওমরাহ শেষে দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী

২৪ মে ২০১৭, ১২:৫৫

পবিত্র ওমরাহ পালন ও মহানবী হজরত মুহম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  সোমবার রাতে ওমরাহ পালন শেষে তিনি তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে দেশের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন।  আজ ভোর ৪টা নাগাদ প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিশেষ বিমানের ঢাকায় হযরত শাহজালাল (র.) বিমানবন্দরে পৌঁছার কথা।  সরকারি বার্তা সংস্থা বাসস জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার মক্কায় পবিত্র ওমরাহ পালন করেন।  তিনি প্রথমে পবিত্র কাবা শরিফের চারপাশে
তোয়াফ করেন এবং পরে সাফা ও মারওয়ায় হাঁটেন ও দৌড়ান।  এরপর তিনি দেশবাসী ও সমগ্র মুসলিম বিশ্বের শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।  পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং প্রধানমন্ত্রীর অন্য সফরসঙ্গীও ওমরাহ পালন করেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মদিনা নগরীতে মসজিদে নববীতে মহানবী হজরত মুহম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত শেষে জেদ্দায় বাদশাহ আবদুল আজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন।  প্রধানমন্ত্রী ও তার সফর সঙ্গীদের নিয়ে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটটি বিকালে কিং আবদুল আজিজ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ত্যাগ করে।  সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ, জেদ্দায় বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল এফ এম বোরহান উদ্দিন ও সৌদি সরকারের প্রতিনিধিরা বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান।  সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সউদের আমন্ত্রণে আরব ইসলামিক-আমেরিকান (এআইএ) সম্মেলনে যোগ দিতে চার দিনের সরকারি সফরে ২০ মে প্রধানমন্ত্রী রিয়াদের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।  ‘জয় আমাদেরই হবে’—এই স্লোগান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং সম্মেলনে ৫৬ আরব ও মুসলিম দেশের নেতারা সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা ও জঙ্গিদের অর্থায়ন প্রতিরোধে পথ খুঁজে বের করার বিষয়ে আলোচনা করেন।  বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী তার লিখিত বক্তৃতায় বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে জঙ্গিবাদী ও সন্ত্রাসীদের কাছে অস্ত্র জোগান দেওয়া বন্ধ করার আহ্বান জানান।  সম্মেলনে শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদ দমনে বেশ কয়েকটি প্রস্তাব পেশ করেন।