এবার শাস্তিই পেল সাকিব

টাইগার দলপতি সাকিব আল হাসান দলে যোগ দিলেন, খেললেন আর জয় করলেন। তার আগমণেই বাংলাদেশ দলে পরিবেশ পরিবর্তনের হাওয়া লাগে। মাঠে খেলোয়াড়দের শরীরী ভাষা গেল বদলে। যে যার জায়গা থেকে শতভাগ দিলেন। তাতে শুরুতেই শ্রীলঙ্কাকে খুব করে চেপে ধরে বাংলাদেশ। কুশাল পেরেরা ও থিসারা পেরেরার ব্যাটে সেখানে থেকে শ্রীলঙ্কা ঘুরে দাঁড়ালেও ১৫৯ রানের বেশি করতে পারেনি। এই লক্ষ্য তারা করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারের আগে ২ উইকেটে জয় পায় টাইগাররা।

বাংলাদেশ ইনিংসের শেষ ওভারের প্রথম বলটি ওয়ান বাউন্স সিগন্যাল দেন আম্পায়ার। দ্বিতীয় বলটি প্রথম বলের চেয়ে আরও উপর দিয়ে চলে যায়। কিন্তু আম্পায়ার বলটি নো বল দেননি। এ নিয়ে শুরু হয় হট্টগোল। বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা আম্পায়ারের কাছে নো বলের আবেদন জানান। এ নিয়ে আম্পায়ার ও শ্রীলঙ্কা দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের কথা কাটাকাটি হয়। তারপরও আম্পায়ার বলটিকে ‘নো বল’ দেননি।

তাই দুই ব্যাটসম্যানকে ফিরে আসার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তবে ম্যাচ শেষে সংবাদ
সম্মেলনে প্রশ্নটা শেষ হতে দিলেন না সাকিব, ‘ওটা তো ফিরে যাওয়ার ইঙ্গিতও হতে পারে! দুইটাই বোঝায়।’ ম্যাচের শেষ ওভারে যে উত্তাপ ছড়িয়েছে, যে কথার লড়াই, সেটির চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মাঠে ছেড়ে চলে আসার পরিস্থিতি তৈরি হওয়া-সাকিবের সামনে নিষেধাজ্ঞার হুমকিই ছিল।

কিন্তু স্বস্তির খবর, তেমনটা হয়নি টাইগার এই দলপতির। শুক্রবার (১৬ মার্চ) রাতে দলীয় সূত্র জানিয়েছে, ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড সাকিবকে ২৫ শতাংশ ম্যাচ ফি জরিমানা আর একটি ডিমেরিট পয়েন্ট দিয়েছেন। ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন একাদশের বাইরে থাকা নুরুল হাসান সোহানও।

উত্তেজনার মুহূর্তে নুরুলের সঙ্গে কথার লড়াই হয়েছিল লঙ্কান খেলোয়াড়দের। টিম ম্যানেজমেন্টের এক সদস্য জানালেন, ম্যাচ রেফারি বুঝতে পেরেছেন ঘটনার উৎপত্তি আসলে আম্পায়ারের ভুলে! যেহেতু আম্পায়ারদের ভুলের কারণেই এত কিছু, তাই সাকিব-নুরুলকে বেশি জরিমানা গুনতে হয়নি।