কুলাউড়ায় পাকিস্তানী পতাকা উত্তোলন! আসলে ঘটনাটি কি?

মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার গাজীপুর চা বাগানে পাকিস্তানী পতাকা উত্তোলন নিয়ে গত দু’দিন আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে গোটা জেলা জুড়ে। স্বাধীনতা দিবসকে সামনে রেখে এ ধরণের ধৃষ্টতা প্রশাসন সহ সকলকে ভাবিয়ে তুলেছিল। কিন্তু প্রকৃত ঘটনা না জেনে চিলে কান নিয়ে গেছে এধরনের অবস্থা। অনেকে আবার বাগান ব্যবস্থাপককে অনেক খারাপ মন্তব্য করে পোষ্ট দিয়ে বিচার দাবি করছেন।

বাগান কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে জানা যায়, গাজীপুর চা বাগান বাংলোয় গত ২৪ মার্চ থেকে ‘দহকাল’ নামক মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্র নির্মাণ বা শুট্যিং চলছে।

মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে কুলাউড়া উপজেলার গাজীপুর চা বাগানে পাক বাহিনীর নৃশংসতার অনেক স্মৃতি রয়েছে। সেই স্মৃতি অনুকরণে দহকাল ছবির শুট্যিং চলছে। শুটিং চলাকালীন সময়ে কাহিনীর প্রয়োজনে পাকিস্তানী পতাকা উত্তোলন করা হয় আবার চিত্রগ্রহণ শেষে তা নামিয়ে ফেলা হয়েছে।
শুট্যিং দেখতে আসা কিছু অতি উৎসাহীব্যক্তি পাকিস্তানী পতাকার ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করে বাগান ব্যবস্থাপক কাজল মাহমুদকে হেয় প্রতিপন্ন করতে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। মুহুর্তেই তা ভাইরাল হয়েছে যায়। আলোচনা, সমালোচনায় অনেকে খারাপ মন্তব্যও করতে থাকেন। এছাড়া একটি গোষ্ঠি এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বাগান ব্যবস্থাপক কাজল মাহমুদকে হেয় প্রতিপন্নের চক্রান্তে মেতে ওঠেন।

এব্যাপারে বাগান ব্যবস্থাপক কাজল মাহমুদের সাথে এ প্রতিনিধির কথা হলে তিনি জানান, একটা চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজ চলছে তার বাগানে। সরকারে অনুমতি সাপেক্ষে নির্মাণ কাজের নিয়ন্ত্রক চলচ্চিত্র অধিদফতর ও তথ্যমন্ত্রণালয়। ছবির নির্মাণ কাজের সুযোগ করে সহায়তা করছেন বাগান কর্তৃপক্ষ। নির্মাতারা পতাকা টানিয়েছে আবার নামিয়েছে। এখানে আমার করার কিছু করার ছিলো না। ছবি নির্মাণে সহায়তা করার নির্দেশনা আছে উপরের। আমার পক্ষে পাকিস্তানী পতাকা টানানোর কোন প্রশ্নই উঠে না।