খাবার চাইলেই ভোগের শিকার হচ্ছেন নারীরা

বোমাবর্ষণে মৃত্যু আর মৃত্যুতে শ্মশানে পরিণত হয়েছে সিরিয়া। চরম ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দেশজুড়ে। আর সেই যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার বীভৎস ছবি ছড়িয়ে পড়েছে চারিদিকে। তাই খাবার আর সংস্থানের সেখানকার নারীদের বিক্রি করতে হচ্ছে শরীর।

সন্তানের মুখে খাবার তুলে দিতে আজ আর নিজেদের সম্ভ্রম বা সম্মান নিয়ে ভাবছেন না সিরিয়ার নারীরা। একদিকে আগ্রাসন আর একদিকে যৌন শোষণ পাল্লা দিয়ে গ্রাস করছে তাদের।

সম্প্রতি রাষ্ট্রপুঞ্জের একদল পর্যবেক্ষক সিরিয়ায় ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে দেখেছেন, কোনো নারী সেখানে যেতে রাজি হচ্ছেন না। যারা যাচ্ছেন তারা নিজেদের সম্ভ্রম আগেই বিকিয়ে দিয়েছেন। ত্রাণের বিনিময়ে তাদের কাছে কিছু চাওয়া হচ্ছে না দেখে তারা নিজেরাই অবাক হয়ে যাচ্ছেন। এমনই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে সিরিয়ায়।

রাষ্ট্রপুঞ্জের ত্রাণ শিবিরে আসা নারীদের সঙ্গে কথা বলে তারা জানতে পেরেছেন, অনেকেই আসেন তাদের ভেঙে চুরে যাওয়া আশ্রয় শিবিরে। ত্রাণ দেওয়ার বিনিময়ে সেই সব শিবিরে থাকা নারীদের সঙ্গে রাত কাটাতে চান। এই প্রস্তাব থেকে বাদ যান না কিশোরীরাও। অনেকেই আবার কয়েকদিনের জন্য বিয়ে করে নিয়ে যান। ভোগ শেষ হলে তালাক নিয়ে ফিরে আসেন সেই সব নারীরা। কবে পাওয়া যাবে মুক্তি। আদৌ কি জীবদ্দশায় সেই স্বাদ পাবেন তারা? উত্তর নেই কারও কাছে।

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন