দুই ফরম্যাটের জন্য যে দুইজন কোচকে নিয়োগ দিতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

সাম্প্রতিককালে অস্ট্রেলিয়ান কয়েকটি গণমাধ্যম তার কোচ হওয়ার বিষয়ে এমন অগ্রিম খবর দিয়েছিল। গত বছর লেম্যান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে না যাওয়ায় খণ্ডকালীন কোচ হিসেবে দায়িত্ব-ও পালন করেছিলেন ল্যাঙ্গার। এবার পাকাপাকিভাবে কোচ হতে পারেন তিনি। গুঞ্জনটা আরো জোরালো হয়ে উঠেছে লেম্যান স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ানোয়।

বল টেম্পারিংয়ের দায়ে অস্ট্রেলিয়ার তিন ক্রিকেটারের নির্বাসিত হওয়ার বৃহস্পতিবার আচমকা পদত্যাগ করে বসেন ড্যারেন লেম্যান। চলমান জোহানেসবার্গ টেস্টই হবে তার শেষ ম্যাচ। এরপর অজিদের কোচ হিসেবে দেখা যাবেনা তাকে। এদকে জল্পনা-কল্পনা চলছে কে হচ্ছেন লেম্যানের উত্তরসূরি? অস্ট্রেলিয়ার কোচ হওয়ার দৌড়ে আছেন দেশটির কিংবদন্তি ক্রিকেটার ও সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং।

পেইন-স্টার্কদের সম্ভাব্য কোচ হিসেবে আরো কয়েকটি নাম শোনা যাচ্ছে। জাস্টিন ল্যাঙ্গার, ট্রেভর বেলিস, ডেভিড সাকের, ব্র্যাড হাডিন, ক্রিস রজার্স, জেসন গিলেস্পি আছেন আলোচনায়। তাদের মধ্যে সবেচেয়ে এগিয়ে আছেন ল্যাঙ্গার। লেম্যানের উত্তরসূরি হিসেবে আগামী বছর অ্যাশেজ সিরিজ শেষে নাকি তাকে নিয়োগ দেওয়ার কথা ছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার।

সিএ’র অন্দরমহলের খবর- লেম্যানের উত্তরসূরি হিসেবে দুজনকে নিয়োগ দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া। টেস্টের জন্য একজন এবং অন্যজন সীমিত ওভারের ফরমেটের জন্য। পন্টিং অবশ্য সীমিত ওভারের কোচ হওয়ার জন্য ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। তবে ল্যাঙ্গার এককভাবে দলের দায়িত্ব নিতে চান।

কারণ কোচিং অভিজ্ঞতায় তার কোনো ঘাটতি নেই। অভিজ্ঞতার বিচারে ল্যাঙ্গারের সঙ্গে তাই তুলনাও চলে না পন্টিংয়ের। তবে শ্রীলঙ্কা সফরে অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি সহকারী কোচের ভূমিকায় ছিলেন পন্টিং। ত্রিদেশীয় সিরিজেও একই ভূমিকায় কাজ করেছেন সাবেক এই অধিনায়ক।

স্বদেশি সাবেক অধিনায়ক পন্টিং নিজেও আগে-পরে অস্ট্রেলিয়ার কোচ হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। শেষ পর্যন্ত কিংবদন্তি এই ব্যাটসম্যানের আশাটা পূরণ হবে কিনা সেটার জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে। তবে একটি সূত্রের খবর, চলমান দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্টের পরই কোচ চূড়ান্ত করবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)।