বিশ্বকাপ উঁচিয়ে ধরার স্বপ্ন দেখেন মেসি

বর্তমান বিশ্বের সেরা দুইজন খেলোয়ারের একজন মেসি। কারো কাছে বিশ্বসেরা তো কারো কাছে দ্বিতীয় সেরা। তবে সেসব এক পাশে রাখলে ক্লাব ক্যারিয়ারে এমন কোন ট্রফি নেই যা সে জিতেনি। কিন্তু জীবনের আক্ষেপ জাতীয় দলের হয়ে কিছুই জেতা হয়নি তার। যার কারনে নিজ দেশেই অনেক সময় অপমানিত হতে হয়েছে তাকে।  এবারই হয়তো শেষবারের মতো বিশ্বকাপে দেখা যাবে খুদে জাদুকরকে। শেষবেলায় মেসির চোখে একটাই স্বপ্ন, বিশ্বকাপ ট্রফিটা হাতে নেয়া।

এসব নিয়ে আমেরিকা টিভিতে দেয়া এক সাক্ষাতকারে  মেসি বলেন, আমাদের এই গ্রুপটার সম্ভবত এটাই শেষ বিশ্বকাপ। মানুষের চিন্তা-ভাবনা এবং ধ্যান ধারণাই আমাদেরকে এটা ভাবতে বাধ্য করেছে। অনেকের কাছেই টানা তিনটি ফাইনাল খেলতে পারাটা মূল্যহীন। দুর্ভাগ্যজনকভাবে সবাই আমরা ফলাফলের দিকেই নির্ভরশীল। মূলত এই কারণেই আমাদের এই গ্রুপটা মনে করছে, এটাই আমাদের শেষ বিশ্বকাপ। আমরা তিনটা ফাইনালে খেলেছি কিন্তু জিততে পারি নি। অনেক কথাই নিন্দুকেরা আমাদের নিয়ে বলেছে। আমরা বিশ্বাস করি, যদি এই বিশ্বকাপটা আমরা না জিততে পারি তাহলে আগের থেকেও অনেক বেশি তিরস্কার পেতে হবে। তখন আমাদের আর্জেন্টিনা দল থেকে বের হয়ে যাওয়া ছাড়া সম্ভবত কোন পথ থাকবে না। এটাই হচ্ছে আমাদের গ্রুপটার সর্বশেষ কথা।

আর্জেন্টাইন তারকা বলেন, আবার অন্যভাবে চিন্তা করতে গেলে তাদের সমালোচনাগুলোও ঠিক আছে। কিন্তু একই সময়ে তারা চাইবে আমরা যেন দলে আর না থাকি। এর আগেও এটা তারা করেছে। এরকমটা কিছুদিন আগেও আর্জেন্টিনার ক্রীড়া সাংবাদিকরা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিয়েছিল এবং জনগণও সেটি ঢোকে গিলেছিল। তবে খুব কম সংখ্যক সাংবাদিকই এটা করেছিল। আমাদের দলের অনেক প্লেয়ারকে তারা মিথ্যা অপবাদে জর্জরিত করেছিল কিন্তু একই সময়ে আমরা অন্যটা ভেবেছিলাম। যদিও আমি আশা করছি এবার সবকিছুই ঠিক থাকবে এবং আর্জেন্টিনা দলের হয়ে বিশ্বকাপটা উপভোগ করতে পারবো।

রাশিয়া বিশ্বকাপের ট্রফি জয়ের কল্পনা করেন উল্লেখ করে মেসি বলেন, আমি মাঝে মাঝে মনে মনে কল্পনা করি, জুলাইর ১৫ তারিখে মস্কো স্টেডিয়ামের ফাইনালে খেলছি, ফাইনাল জিতেছি এবং ট্রফি উঁচিয়ে ধরেছি। এটাই আমার স্বপ্ন। প্রত্যেকবার যখন আমি বিশ্বকাপে আসি আগের থেকে শক্তিশালি হয়েই আসি। এজন্যেই আমি ২০১৪ সালে কেঁদেছিলাম। আমরা জানতাম, এটা কতটা কষ্টকর ছিল এতো কাছে গিয়েও এভাবে না পাওয়াটা। এটা সত্যিই হৃদয়বিদারক আমাদের জন্য।