মুখ ঘুরানোর সময় কন্ট্রোল টাওয়ারের খুব কাছে চলে এসেছিল বিমানটি

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। চার ক্রুসহ ৭১ জন আরোহীর মধ্যে ৫০ জন নিহত হয়েছে বলে জানা গছে। সোমবার বিমানটি ১২টা ৫০ মিনিটে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কাঠমান্ডুর উদ্দেশে রওনা হয়।

একজন নির্ভরযোগ্য প্রত্যক্ষদর্শীর উদ্ধৃতি দিয়ে বিমান বিধ্বস্তের মুহূর্তটি প্রকাশ করেছে নেপালি টাইমস। ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের টার্মিনালের পশ্চিমে সিনামাঙ্গাল এলাকা থেকে তিনি দুর্ঘটনাটি দেখতে পান।

Advertisement

নেপালি টাইমসকে ওই ব্যক্তি বলেন, বমবার্ডিয়ার কোম্পানির তৈরি বিমানটিকে তিনি দক্ষিণ দিক থেকে এগিয়ে যেতে দেখেন। কিন্তু বিমানটি অবতরণের পরিবর্তে হঠাৎ অপ্রত্যাশিতভাবে বামে দিক তীক্ষ্ণ বাঁক নেয়।

ওই ব্যক্তি জানান, মুখ ঘুরানোর সময় বিমানটি কন্ট্রোল টাওয়ারের খুব কাছে চলে আসে। এরপর সেটি একটি বুদ্ধ এয়ার এটিআর বিমান ও ইয়েতি এয়ারলাইন জেটস্ট্রিমের ওপর দিয়ে উড়ে গিয়ে তার চোখের আড়ালে চলে যায়। এর এক মুহূর্ত পরেই রানওয়ের অপর প্রান্ত থেকে কালো ধোঁয়া উড়তে দেখলাম।

একজন বিমান উড্ডয়ন বিশেষজ্ঞ জানান, অবতরণের করতে গিয়ে হয়তো শেষ মুহূর্তে বিমানটিকে অবতরণের পরিকল্পনা বাদ দিতে হয়েছিল। এমন ক্ষেত্রে বিমানকে বাইরে উড়ে গিয়ে আবার নতুন করে অবতরণের প্রস্তুতি নিতে হয়। কিন্তু এই ক্ষেত্রে কোনো কারণে বিমানটি আচমকা বাঁক নেয়ায় ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে এবং মুখ থুবড়ে পড়ে।