যেভাবে কোন ম্যাচ না হেরেই দুই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছিল ব্রাজিল

কোন ম্যাচ না হেরে কি বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়া যায়? এই উত্তরটা আর কেউ জানুক বা না জানুক, ব্রাজিল ভক্তরা অবশ্যই জানবে। অন্তত ব্রাজিল ভক্তদের কাছে করলে তারা বলবে হ্যা পারা যায়। কিন্তু কিভাবে?

১৯৭৮ এবং ১৯৮৬ বিশ্বকাপে ব্রাজিল কোন ম্যাচ না হেরেই বিদায় নিয়েছিল ট্রুনামেন্ট থেকে। কিভাবে?

১৯৭৮ বিশ্বকাপ হয়েছিল আর্জেন্টিনার মাটিতে। থকন কোন নকআউট পর্ব ছিল না। গ্রুপ পর্ব শেষে আটটি দল দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠত। তারপর সেখানে আবার চারটি করে দল ভাগ হয়ে লড়াই করত। দুই গ্রুপের সেরা দুই দল ফাইনাল খেলত। দুই গ্রুপের রানার্সআপ দুই দল তৃতীয় স্থান নির্ধারনী ম্যাচে অংশ নিত।

সেবার ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, পেরু ও পোল্যান্ড একই গ্রুপে পড়েছিল।

প্রথম ম্যাচে ব্রাজিল পেরুকে ৩-০ গোলে এবং আর্জেন্টিনা পোল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারায়। দ্বিতীয় ম্যাচে ব্রাজিল আর্জেন্টিনা ০-০ গোলে ড্র করে। তৃতীয় ম্যাচে ব্রাজিল পোল্যান্ডকে ৩-১ গোলে হারায়। ফলে ব্রাজিলের গোল ব্যবধান দাড়ায় ৫। আর্জেন্টিনার গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে হলে পেরুকে হারাতে হবে ৪-০ গোলে।

তবে আর্জেন্টিনা ম্যাচটি জিতে নেয় ৬-০ গোলে। আর এই কারনে তৃতীয় স্থান নির্ধারনী ম্যাচে মুখোমুখি হতে হয় ব্রাজিলকে যেখানে তারা ইতালিকে হারিয়ে তৃতীয় হয়ে কোন ম্যাচ না হেরেই বিদায় নেয়।

দ্বিতীয়বার ব্রাজিল না হেরে বিদায় নেয় ১৯৮৬ বিশ্বকাপে। সেবার ব্রাজিল কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্সের মুখোমুখি হয় এবং ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। তবে পেনাল্টিতে হেরে যায় ব্রাজিল। আর পেনাল্টির ফলাফল মুল ম্যাচের ফলাফলের সাথে যোগ করেনা ফিফা। ফলে এই ট্রুনামেন্ট থেকেও কোনম্যাচ না হেরে বিদায় নেয় ব্রাজিল।