লজ্জাহীন আইসিসির কি লজ্জা হবে রাজার কথায়?

রোববার জিম্বাবুয়ের হারারে স্পোর্টস ক্লাবে সাবেক দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তান। অথচ সুপার সিক্সের প্রথম তিন ম্যাচে হেরে যাওয়া আফগানদের বিশ্বকাপ খেলার কথা ছিলো না। একটি প্রবাদ আছে ‘ভাগ্য সবসময় সাহসীদের পক্ষে যায়’।ফাইটার আফগানদের সাথে কথাটা হুবহু যায়। সব সমীকরণ মিলিয়ে অবশেষে বিশ্বকাপের টিকিট পেল আফগানরা।

অন্যদিকে স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন ভঙ্গ। ৩৯ বছর পর এবারই প্রথম জিম্বাবুয়েকে ছাড়া হবে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। মাত্র ১০ দলের বিশ্বকাপ। যেখানে দক্ষিণ এশিয়ার দল ৫টি। প্রশ্ন থেকেই যায় এটা কি বিশ্বকাপ! উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে পৃথিবীতে মোট দেশের সংখ্যা – ২০৪টি। এর মধ্যে মোট স্বাধীন রাষ্ট্র- ১৯৩টি। সেখানে মাত্র ১০ দল নিয়ে একটা বিশ্বকাপ আয়োজন সত্যিই হাস্যকর। অনেক প্রতিভাবান টিম আছে যারা তাদের প্রমাণ করার সুযোগই পাচ্ছে না। অথচ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজন করে ৩২ দল নিয়ে। ২০২৬ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ৪৮ দল নিয়ে। তারা যেখানে দল বাড়াচ্ছে সেখানে আইসিসি ক্রিকেটকে ছোট পরিসরে নিয়ে আসছে।

তাইতো বাছাই পর্বে থেকে বাদ পরে জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজা ম্যান অফ দ্যা টুর্নামেন্টের পুরষ্কার নিতে এসে বলেন,‘এর ট্রফিটা আমাকে মনে করাবে ১৫ মিলিয়ন মানুষের স্বপ্ন ভঙ্গের কথা। এই ট্রফিটা আমাকে মনে করাবে পিটার বোরেনের কথা, কটজারের কথা। এই, ট্রফিটা আমাকে মনে করাবে ইউএইর রোহান মোস্তফার কথা, আমাকে মনে করে যেই দুইটা দেশ ওয়ানডে স্ট্যাটাস হারিয়েছে তাদের কথা। আমি জানি আমি ইমোশনাল হয়ে যাচ্ছি। কিন্তু ক্রিকেট’টা তো এমন’ই।’

আইসিসি কি পারতো না অন্তত ১২ টা দল নিয়ে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে।