শামির দেয়া চেক ভাঙাতে পারলনা স্ত্রী, কতটাকার চেক ছিল?

আলোচনা করে স্ত্রী হাসিন জাহানের সঙ্গে সমস্ত পারিবারিক বিবাদ মিটিয়ে নিতে চেয়েছিলেন মহম্মদ শামি। কিন্তু স্ত্রী তাতে রাজি হননি। ‘সুবিচার’ চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। তাই এবার অন্য উপায়ে হাসিনকে আটকানোর চেষ্টা করছেন স্বামী। মঙ্গলবার শামির দেওয়া এক লক্ষ টাকার চেক ভাঙাতে পারলেন না স্ত্রী হাসিন জাহান। চেক ভাঙাতে না পেরে মঙ্গলবার ব্যাংক থেকে খালি হাতেই বাড়ি ফিরতে হল তাঁকে।

ভারতীয় দলের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার আগে দু’টি চেক স্ত্রী হাসিনের হাতে দিয়ে গিয়েছিলেন শামি। বলেছিলেন, নিজের গাড়ির কিস্তির টাকা মেটানো ও সংসার চালানোর খরচ এই চেক ভাঙিয়েই তুলতে পারবেন হাসিন। সেইমতোই প্রথম চেক ভাঙিয়ে হাসিন শামির বিএমডব্লু গাড়ির কিস্তির টাকা মিটিয়েছিলেন। বাকি ছিল সংসার খরচের জন্য আরও একটি এক লক্ষ টাকার চেক। এদিন সেই চেক নিয়ে শরৎ বোস রোডের একটি বেসরকারি ব্যাঙ্কের শাখায় যান হাসিন। কিন্তু ব্যাংক কর্মীরা সেই চেক ভাঙিয়ে টাকা দিতে পারবেন না বলে হাসিনকে জানিয়ে দেন। কারণ, কয়েকদিন আগেই ভারতীয় পেসার ‘স্টপ পেমেন্ট’ করে দিয়েছিলেন। এমন ঘটনায় বেজায় ক্ষুব্ধ হয়ে শামির বিরুদ্ধে ফের তোপ দাগেন হাসিন। তিনি জানান, “শামি মুখে বড় বড় কথা বলছে। বলছে, সে নাকি মেয়ে ও সংসারকে খুব ভালবাসে। মেয়ে ও সংসারের জন্য সে নাকি আমার সঙ্গে সমঝোতা করতে চায়। তাই যদি হয়, তাহলে চেকে ‘স্টপ পেমেন্ট’ করল কেন? মেয়ে ও সংসারের টাকা আমি এখন কোথা থেকে পাই?” এই বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়েছেন হাসিন।

এদিকে, শামির বিরুদ্ধে ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হাসিন। মঙ্গলবার আবার কয়েকটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন তিনি। যেখানে আকাঙ্ক্ষা নামে আরেক মহিলার কথা ফাঁস করেছেন তিনি। হাসিন জানান, “আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে শামির গভীর সম্পর্ক ছিল। নিয়মিত কথা ও চ্যাটিং হত তাদের।” সেই চ্যাটিংয়ের কিছু স্ক্রিন শটও পোস্ট করেছেন। তবে কোনও বিষয়েই প্রতিক্রিয়া দেননি শামি।