বল ট্যাম্পারিং কান্ডে কষ্ট পেয়েছেন ক্রিকেটের ভদ্র খেলোয়ার গিলক্রিস্ট, যা বললেন

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনে বল ট্যাম্পারিংয়ের কারণে আইসিসি অভিযুক্ত করেছে অস্ট্রেলিয় ব্যাটসম্যান ক্যামেরন ব্যানক্রফটকে। এই পরিকল্পনায় যুক্ত থাকায় লিডারশিপ ও দলের হয়ে ক্ষমা চেয়েছেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। তবে মনে হচ্ছে না সহজে ছাড়া পাচ্ছেন শাস্তি থেকে। দেশটির সরকার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে (সিএ) বলেছে অধিনায়ক থেকে স্মিথকে সরিয়ে দিতে। খোদ অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল ঘটনাটিকে খুবই হতাশাজনক বলেছেন।

এদিকে ক্রিকেট বিশ্বে সততার জন্য যে কজন খেলোয়াড় ভক্ত-সমর্থকদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন তাদের মধ্যে সাবেক অস্ট্রেলিয় ক্রিকেটার অ্যাডাম গিলক্রিস্ট একজন। অনেকবারই এমন হয়েছে, আম্পায়ার তাকে আউট ঘোষণা করেননি কিন্তু নিজে বুঝতে পেরে ড্রেসিং রুমের দিকে হাঁটা ধরেছেন। এবার তার দলটিই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে বল ট্যাম্পারিং করেছে। সেটাও পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী। প্রচন্ড কষ্ট পেয়েছেন এতে। আবেগপ্রবণ সাবেক এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান বলেছেন তার প্রাণের এই দলটি এখন ক্রীড়া বিশ্বেই হাসি-ঠাট্টার উপাদানে পরিণত হয়েছে।

এই ঘটনায় প্রচন্ড ধাক্কা পাওয়া গিলক্রিস্টের মতে অস্ট্রেলিয়া এখন হাসি-ঠাট্টার পাত্র হওয়ার মত দল, ‘আমি বিস্মিত, স্তব্ধ- আমি নাটক করার চেষ্টা করছি না। আমি বিষয়টি নিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে গেছি। কষ্ট পেয়েছি। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট এবং অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ন্যায়পরায়নতা এখন ক্রীড়াবিশ্বে হাসির খোরাক হবে।’

গিলক্রিস্ট খুব ভালমতই জানেন অনিয়ম করা দেশগুলোকে নিয়ে কথা বলতে কেউ ছাড় দেয় না। আর এখানে অজি অধিনায়ক নিজে স্বীকার করেছেন দোষের কথা, ‘অবশ্যই এটা খেলার নিয়মের বাইরে। আর আমাদের জাতীয় দলের অধিনায়ক বলেছেন তারা বসে প্রতারণা করার উপায় নিয়ে ভেবেছেন ও পূর্বপরিকল্পনা করেছেন।’
গিলক্রিস্ট মনে করেন এত বড় ঘটনার পর স্মিথের জন্য অধিনায়কজত্ব করাটা সহজ হবে না, ‘তুমি যা করেছ তা স্বীকার করার পর এই জায়গাটা ধরে রাখা এবং যারা দেখছে তাদের বিশ্বাস অর্জন করে এগিয়ে যাওয়াটা খুবই কঠিন।’