বাগেরহাটে সরকারী খালের উপর ভেড়ীবাধ নির্মাণ করে অবৈধ মৎস্য ঘের স্থাপন
The news is by your side.

বাগেরহাটে সরকারী খালের উপর ভেড়ীবাধ নির্মাণ করে অবৈধ মৎস্য ঘের স্থাপন

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবিরঃ বাগেরহাট অফিস:বাগেরহাটের ফকিরহাটে ৩টি ইউনিয়নের একমাত্র পানি নিষকাশনের সরকারী খালে ভেড়ী বাধ দিয়ে মৎস্য ঘের নির্মান করা হচ্ছে। যে কারনে আগামী বর্ষা মৌসুমে প্রবল বর্ষণ হয়ে চরম জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে জনগনের চরম দুর্ভোগ নেমে আসার আশংখ্যা করা হচ্ছে। দ্রুত সরকারী খাল দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করা না হলে জলাবদ্ধতা এমন আকার ধারন করবে যে কবর দেওয়ারও স্থান খুজে পাওয়া যাবে না।
প্রাপ্ত লিখিত অভিযোগ ও সরেজমিনে অনুসন্ধ্যানে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার বেতাগা ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত ধনপোতা-মাসকাটা সরকারী খালটি পিলজংগ ইউনিয়নের শ্যামবাগাত বাসস্ট্যান্ড হতে শুরু করে মাসকাটা সাব প্রজেক্ট হয়ে লখপুর ইউনিয়নের খড়িয়া বিলের মধ্যদিয়ে বটিয়াঘাটা উপজেলার আমেরপুর ইউনিয়নের মরা পশর নাদীতে গিয়ে মিশেছে।

সরকারী এই নদীটির ধনপোতা-মাসকাটা নামক স্থানে জনগন ও যানবাহন চলাচলের জন্য প্রায় ২০লক্ষ টাকা ব্যায়ে ১টি ব্রীজ নির্মান করা হয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় ব্রীজের পূর্ব ও পশ্চিমপার্শ্বে ধনপোতা গ্রামের ৭/৮জন ব্যাক্তি ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে যে যার মত ভেড়ি বাধ নির্মাণ করে মৎস্য ঘের তৈরীর কাজে ব্যস্ত রয়েছে। তারা সরকারী খালের অধিকাংশ স্থান দখল করে সেখানে ভেড়ী বাধ নির্মান করায় ৩টি ইউনিয়নের একমাত্র পানি নিষকাশনের পথ পুরোপুরি বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। স্থানীয় বেশ কয়েকজন এলাকাবাসি অভিযোগ করে বলেছেন,৭/৮জন ভুমি দস্যু সরকারী খালে ভেড়ী বাধ দিয়ে পানি নিষকাশনের পথ বন্ধ করে দিচ্ছে।

এতে তারা কিছুদিন লাভবান হলেও হাজার হাজার জনগণ ক্ষতিগ্রস্থ হবে। শুধু তাই নয়, শতশত মৎস্য ঘের, কৃষকের ক্ষেতের ফসল ঘরবাড়ি সব কিছু তলিয়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতির আশাংখা রয়েছে। তারা আরো বলেন, পিলজংগ, বেতাগা ও লখপুর ইউনিয়নের প্রায় ২৭টি গ্রামের সকল বৃষ্টির পানি এই ধনপোতা-মাসকাটা মরা নদী দিয়েই সরবরাহ হয়ে থাকে। কিন্তু সেই নদীটির মাঝ পথে ভেড়ীবাধ দিয়ে আটকিয়ে রাখায় উপরের পানি সরবরাহ হতে পারবে না। আর পানি সরবরাহ হতে না পারলে আগামী বর্ষা মৌসুমে প্রবল বর্ষন হলে তা নির্ঘাত বন্যার রুপ ধারন করবে। ফলে জনগনের মাঠে মরে যাওয়া ছাড়া আর কোন উপায় থাকবে না।

বেতাগা ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের ধনপোতা গ্রামের ইউপি সদস্য মোঃ আলমগীর হোসেন এর সাথে আলাপ করা হলে তিনি খাল দখলকারীদের উচ্ছেদ পূর্বক মরা খালটি পূনঃ খননের জোর দাবী জানান। এব্যাপারে স্বশাসিত ইউনিয়ন পরিষদ এ্যাডভোকেসি গ্র“প অব বাংলাদেশ এর প্রেসিডেন্ট ও বেতাগা ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন দাশ এর সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন, ধনপোতা-মাসকাটা খালের উপর নির্মিত ব্রীজের পার্শ্বে মরে যাওয়া খালে কয়েকজন ব্যাক্তি ভেড়ী বাধ দিয়ে মৎস্য ঘের করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ এসেছে। যে বিষয়টি তিনি আমলে নিয়েছেন। অচিরেই বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলেও তিনি জানান। উলে­খ্য বেতাগা ইউনিয়নের ধনপোতা গ্রামের মূতঃ মুনছুর আলী মোড়লের পুত্র মোঃ আলমগীর মোড়ল ১৫এপ্রিল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও একই দিন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) এবং ১২এপ্রিল বেতাগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বরাবরে জনস্বার্থে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।