আমদানি-রফতানি প্রত্যহার করলো ভারতীয় ব্যবসায়ীরা

দু’দেশের মধ্য ফলপ্রসু আলোচনা হওয়ায় বুধবার সকাল থেকে পুনরায় বেনাপোল বন্দর সচল রয়েছে। উভয় পারেই বন্দরের কাজকর্ম স্বাভাবিক ভাবে চলছে। পাঁচ দফার দাবীতে পেট্রাপোলের বন্দর ব্যাবহারকারী সংগঠন গুলি সোমবার সন্ধ্যায় ধর্মঘটের ডাক দেয়। যার ফলে মঙ্গলবার দিনভর বন্দরের কাজকর্ম বন্ধছিলো।

বেনাপোল বন্দরে পুড়ে যাওয়া ভারতীয় ট্রাকের ক্ষতিপূরণসহ বন্দরের অভ্যন্তরে বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য পাঁচদফার দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে পেট্রাপোল-বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের ইমপোর্ট এক্সপোর্ট মেইনটেন্যান্স কমিটি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বেনাপোল বন্দর ব্যাবহারকারী বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ ব্যাপারে পেট্রাপোল বন্দর ব্যাবহারকারী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেন।দীর্ঘ সময় আলোচনার পর উভয়দেশের বন্দর ব্যাবহার কারীদের সুবিধা বিবেচনায় তাদের সমস্ত দাবী দাওয়া মেনে নেয়া হয়। যার ফলে বুধবার ভোর থেকে তারা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, তাদের কাছ থেকে ধর্মঘটের চিঠি পাওয়ার পর সন্তোষজনক একটি সমাধানের জন্য আমরাও চিঠি দিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে বৈঠক করে সমস্যা সমাধানের চেস্টায় ছিলাম।

তারা আমাদের ডাকে সাড়া দেয়ায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিষয়টির নিস্পত্তি হয়।তিনি বলেন বন্দরের কাজকর্ম এখন স্বাভাবিক রয়েছে।দু’দেশের মধ্য আমদানি রপ্তানি বানিজ্য শুরু হয়েছে ভোর থেকেই।