ইলিশা-লক্ষীপুর ফেরি চলাচল বন্ধ আটকা পড়েছে কয়েকশ’ যানবাহন

গোপাল চন্দ্র দে,ভোলা প্রতিনিধিঃ ভোলা-লক্ষ্মীপুর রুটের ইলিশা ঘাটে ২৪ জুন (রোববার) সকালে ফেরি থেকে আনলোডের সময় একটি মাল বোঝাই ট্রাকের ক্লাপস ও গ্রিয়ারসেড ভেঙে গেলে ওই রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। অপরদিকে ফেরি কনকচাপা যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য সকাল থেকে বন্ধ রয়েছে।

আজ ২৫ জুন (সোমবার) সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, এতে উভয় পাড়ে আটকা পড়ে কয়েকশ’ যানবাহন। ঈদের পর কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয় চরমভাবে। যাত্রী চাপে গত এক সপ্তাহ ধরে কোনো মালবাহী ট্রাক পার হতে পারেনি এ ঘাটে। এসব ট্রাকের দীর্ঘজট তৈরি হয়েছে।

এছাড়া ভোলা-ইলিশা সড়কে পরানগঞ্জ এলাকায় একটি তেল পরিবহনের ট্যাংকার সেফট ভেঙে পড়লে ওই সড়কেও ৩ ঘণ্টা বড় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতেও আটকা পড়ে যাত্রীবাহী বাসসহ মালবাহী ট্রাক, লড়ি। ফেরির দায়িত্বে থাকা সহকারী ম্যানেজার সিহাবউদ্দিন জানান, সকাল পৌনে ৮টায় লক্ষ্মীপুর মজুচৌধুরী ঘাট থেকে ফেরি কিষানী বড় ১১টি ও ছোট ৬টি যানসহ ভোলার ইলিশা ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

মালবাহী ট্রাক ইলিশাঘাটে নামার সময় এটির গ্রিয়ার সেফট ভেঙে যায়। আর এতেই ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ইঞ্জিন ত্রুটির জন্য বিকল ফেরি কনকচাপা সারাই করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান ফেরির সহকারী ম্যানেজার। এদিকে দূরপাল্লা পরিবহন শ্রমিক সমিতির ঘাট পরিদর্শক কামাল হোসেন জানান, ফেরি কনকচাপার মাস্টাররা এ ঘাট থেকে ও ফেরি সরিয়ে নেয়ার চক্রান্ত করছে।

এ কারণেই তারা ইঞ্জিনের ত্রুটির অজুহাত তুলছে। ভোলা-লক্ষ্মীপুর রুটে যে হারে যানবাহন চলাচল করছে, তাতে ৪টি ফেরির প্রয়োজন। বর্তমানে রয়েছে ৩টি। এর পরেও উভয়পাড়ে সিরিয়াল না পাওয়ায় অপেক্ষমান থাকে কম পক্ষে দুই শতাধিক মালবাহী ট্রাক। এসব যান এক সপ্তাহেও পার হতে পারে না। এ কারণে ব্যবসায়ীদের দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হয়।