গাজীপুরের ‘গণতান্ত্রিক’ নির্বাচনের মহড়া সমাপ্ত করলো সরকার , বাংলাদেশ ন্যাপ

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সাজানো ও পূর্বনির্ধারিত ফল গ্রহণযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।
বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে গাজীপুরবাসীর ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ করে দিতে না পারার ব্যর্থতা নির্বাচন কমিশনের।

মঙ্গলবার গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ভোট গ্রহণের সময় সকাল থেকেই অনেক এলাকায় সরকারদলীয় ছাড়া অন্য দলের এজেন্টরা দাঁড়াতেই পারেননি। আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে এলাকায় এলাকায় মহড়া, নানান কলাকৌশলে পুরো নির্বাচনী পরিস্থিতি সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মনে ভীতির সঞ্চার করা হয়।

নেতৃদ্বয় বলেন, সংগঠিত ভোট ডাকাতি, ব্যালট ছিনতাই, প্রকাশ্যে সিল মারা, প্রতিপক্ষের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া, কোথাও ঢুকতেই না দেয়ার মধ্য দিয়ে আরো একটি ‘গণতান্ত্রিক’ নির্বাচনের মহড়া সমাপ্ত করলো মহাজোট সরকার। এই মহড়ায় প্রশাসন, নির্বাচন কমিশন ও আওয়ামী কর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে ভূমিকা পালন করে সন্ত্রাসের শান্তি কায়েমের মধ্য দিয়ে খুলনা সিটি নির্বাচনের মতই গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সমাপ্ত হলো। আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিজয়ী ঘোষিত হলো এবং গণতন্ত্রের শবযাত্রার মিছিল দীর্ঘতর হলো।

নেতৃদ্বয় আরো বলেন, গাজীপুর সিটিতে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোনো প্রতিফলন ঘটেনি। অবাধে ভোটাধিকার প্রয়োগের কোনো বাস্তবতাও ছিল না। বরং সরকার, প্রশাসন ও দলীয় ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে নির্বাচন নিয়ন্ত্রণ এবং বিজয় নিশ্চিতে যা যা প্রয়োজন সবই সুচারুভাবে সম্পন্ন করা হয়েছে। বাইরে সুনসান ভিতরে গড়বড়ের কূটকৌশল গণতান্ত্রিক চেতনাকে নির্বাসিত করেছে। প্রজাতন্ত্র থেকে জনগণের অংশগ্রহণকে বিচ্ছিন্ন করেছে-যা মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশে গ্রহণযোগ্য নয়।