চরাঞ্চলে হাঁস পালনে বদলাচ্ছে ভোলার বেকারদের ভাগ্য

ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার চরাঞ্চলে হাঁস পালন ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। খামারে হাঁস পালন করে বেকার যুবকরা বেকারত্ব দূর করছে। হাঁস ও ডিম বিক্রি করে পারিবারিক অস্বচ্ছলনতা দূর করছেন তারা। অল্প খরচে লাভ বেশী হওয়ায় হাঁস চাষে ঝুঁকে পড়ছেন অনেকেই।

ভোলার ভেদুরিয়া, ভেলুমিয়া, রাজাপুর, কাচিয়া ও ইলিশা ইউনিয়রের বিভিন্ন চরের বসত বাড়ির আঙ্গিনায় এবং পতিত জমিতে গড়ে উঠেছে অসংখ্য হাসের খামার। মুনাফা, শ্রমিক মুজরি, বাসস্থান তৈরী ও খাদ্যের স্বল্পনা না থাকায় এসব চরে দিন দিন হাঁস চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

হাস চাষ করে বেকারত্ব দূর করার পাশাপাশি আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছে যুবকরা। আর তাই সহজ বিকল্প কর্মসংস্থান হিসাবে হাঁস চাষের ব্যাপক প্রসার লাভ করছে।
এব্যাপারে হাঁস চাষী করির জানান, হাঁস থেকে উৎপাদিত ডিম এবং হাঁস বিক্রির টাকায় অনেকেই নিজের ভাগ্য বদল করেছেন আর তাই একজনকে দেখে অন্যজনও ঝুঁকে পড়ছেন হাঁস পালনে।

এভাবেই দারিদ্রতা দূর হচ্ছে তাদের। এব্যাপারে ভোলা সদর উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: দীনেশ চন্দ্র মজুমদার জানান, জেলা সদরে শতাধিক হাসের খামারে অন্তত ২ লাখের অধিক হাঁস রয়েছে, যা থেকে গড়ে প্রতিনিধি এক লাখ ডিম উৎপাদিত হচ্ছে।