পীরগঞ্জে রাস্তার কাজে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ

মজিবর রহমান শেখ ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁও জেলা পীরগঞ্জ উপজেলার ৮নং দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে শুরু করে চাপরাগঞ্জ বাজার পর্যন্ত প্রত্যান্ত গ্রাম অঞ্চলের একটি রাস্তার কাজে নিম্ন মানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা প্রকৌশল সূত্রে জানা গেছে, এলজিইডির পল্লী সড়ক ও কালভাট রক্ষনাবেক্ষন প্রকল্পের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গুরুত্বপূর্ণ পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প (ওজওউচ-২) এর ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের এলজিইডি’র আওয়াতায় উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চাপরাগঞ্জ বাজারস্থ ৮৭০ মিটার প্রাকল্পিত ব্যায় নির্ধারণ করা হয় ৪৬,৯৯,৫৪৯/- টাকা, যার বর্তমান চুক্তিমূল্য ৪২ লক্ষ ২৯ হাজার ৫৯৮.৮২৯ টাকা। গত ২১/১১/২০১৭ইং থেকে কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এএইচএম সাদিকুল ইসলাম এর পরিচালক মোঃ ডলার।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ইট ভাটার পুড়িয়ে ঝাই হওয়ার ইট, বাকলো দুই-তিন নং ইট ও রেজিংয়ের কাজসহ খোয়ার কাজ করছে, তৎসঙ্গে প্রস্তও কমিয়ে দিয়েছে। ইটের খোয়ার টুকরো গুলো বড় বড় আকার করে দাই সারা ভাবে নিয়ম মত না ভেঙ্গে তাদের ইচ্ছা মত কাজ করছে। তাছাড়া যেখানে মাটি দেওয়ার নিয়ম নেই সেখানেও মাটি ও বালি মিশ্রিত করে কাজ করছে। কাজের নিয়মের কোন সাইনবোর্ডও নেই।

এ নিয়ে স্থানীয় সচেতন মহল ক্ষোভে ফুসে উঠেছে। এলাকার সচেতন মহল এ বিষয়ে সাংবাদিকদের এসব বলাতেই ঠিকাদারের নিয়োজিত লোকজন চেতে উঠে। জানতে চাইলে ঠিকাদারের লোকজন জানায় বিভিন্ন ভাবে কমিশন দিয়ে কাজ করতে হয়। ভালো মন্দ দেখার বিষয় কর্তৃপক্ষের। সংরক্ষিত ইউ’পি সদস্যা যুক্তি রানী জানায়, কাজ তেমন ভালো হচ্ছে না কর্তৃপক্ষকে বললেও শুনেন না।

৮নং ইউ’পি চেয়ারম্যান কার্তিক চন্দ্র জানায়, কাজ খারাপ হচ্ছে শুনেছি বিষয়টি দেখেন। ঠিকাদার ডলারের কাছে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানায়, আপনারা কি ইঞ্জিনিয়ার, যে ভাবে কাজ চলছে সে ভাবেই চলবে। আপনাদের বিষয়ে খোজ খবর নিয়েছি।

কাজের তদারকি দায়িত্বে থাকা উপসহকারী প্রকৌশলী আব্দুল গণি’র নিকট জানতে চাইলে তিনি সাক্ষাতে বলেন, আমি সন্ধা বেলা কাজ দেখতে যাবো আর ডলার এত ভালো কাজ এর আগে করে নাই। এটা ভালো কাজ হচ্ছে।

উপজেলা প্রকৌশলী ইসমাইল হোসেন জানায়, কাজ যে ভাবে হওয়ার সে ভাবে হবে। নিয়ম অনিয়ম বুঝি না। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ্ নিকট মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানায়, যেহেতু প্রকৌশলীর অধিনে তাই প্রকৌশলীকে বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।