বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিয়োগ পাওয়া সেই প্রর্থীর নিয়োগ বাতিল করেছে সিন্ডিকেট

বেরোবি প্রতিনিধি: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ সাংবাদিকতা বিভাগে শিক্ষক হিসেবে সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রিধারী আসফারা হকের নিয়োগ বাতিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট। ক্রমবর্ধমান সমালোচনা ও চাপের মুখে নিয়োগ প্রদানের মাত্র ৬ দিনের মাথায় আজ শুক্রবার সকালে ঢাকাস্থ লিয়াজোঁ অফিসে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৭তম বিশেষ সিন্ডিকেট সভায় তাঁর নিয়োগ বাতিল করে সিন্ডিকেট।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা বিভাগের সহকারি প্রশাসক তাবিউর রহমান প্রধান। এর আগে গত ২৩ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৬ তম সিন্ডিকেট সভায় আসফারা হককে অস্থায়ী পদে নিয়োগ দেয়া হয়। পরের দিন ২৪ জুন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে যোগদান করেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিকভাবে নিয়োগের পর পর্যবেক্ষণ বা প্রবেশন প্রিয়ড থাকে। বিশেষ কারনে ওই নিয়োগ বাতিল করতে পারে সিন্ডিকেট।

জানা যায়, বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করা আসফারা হককে নিয়োগ দেয়ার খবর প্রকাশিত হলে বিশ্ববিদ্যালয় জুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রকাশ্যে-অপ্রকাশ্যে ওই নিয়োগের সমালোচনা করেন। এক পর্যায়ে নিয়োগ বাতিলের দাবি তোলে শিক্ষার্থীরা। অন্যথায় আগামীকাল রবিবার থেকে আন্দোলনে নামার ঘোষণাও দিয়েছিল তারা।

এদিকে, সিন্ডিকেটে নিয়োগ বাতিলের সংবাদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে পোস্ট করেছে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ নিয়োগ বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সিন্ডিকেট ওই প্রার্থীর নিয়োগ বাতিল করেছে। তবে, কি কারনে নিয়োগ বাতিল হলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওই প্রার্থী বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করেছেন।

তার একাডেমিক রেজাল্ট অনেক ভালো। তবে, যেহেতু এদেশে প্রাইভেট ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর একাডেমিক ধরণ ভিন্ন, তাই সিন্ডিকেট মনে করেছেন তিনি মিস গাইড করতে পারেন। একানে তার নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে।