বেনাপোল আন্তর্জাতিক কাস্টমসে যাত্রী হয়রানি ও ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ

বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের বেনাপোল চেকপোস্ট আন্তর্জাতিক কাস্টমসে দায়িত্ব থাকা কাস্টমস সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা তারেক এহসান ও হাসান নামে দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পাসপোর্ট যাত্রীদের ল্যাগেজ চেকিং এর নামে যাত্রীদের হয়রানি ও মালামাল বেশি আছে এই অজুহাতে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা বলে অভিযোগ উঠেছে ।

সরেজমিনে বেনাপোল আন্তর্জাতিক কাস্টমস তল্লাশি কেন্দ্র গিয়ে দেখা যায় পাসপোর্ট যাত্রীরা ভারত থেকে এসে ইমিগ্রেশনের অফিসিয়াল কাজ কর্ম শেষে কাস্টমস তল্লাশি কেন্দ্র প্রবেশের সাথে সাথে সাদা পোশাকে দাঁড়ানো দুই অফিসার যাত্রীদের কাছ থেকে পাসপোর্ট নিয়ে ব্যাগ তল্লাশি শুরু করছে।

ব্যাগ তল্লাশির সময় যে সমস্ত যাত্রীদের নিকট একটু কেনাকাটা বেসি আছে তাদেরকে ডিএম নামে একটি রুমে নিয়ে মালামাল সহ চালান করে দেয়ার ভয় দেখিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। ভারত থেকে আসা পাসপোর্ট যাত্রী দিপক মন্ডল পাসপোর্ট নং এইচ ৯১৬২৯৩০।

সে বিডি২৪রিপোর্ট.কমকে কে জানান, ভারত থেকে এসে ইমিগ্রেশন কাজ শেষ করে কাস্টমস চেকিং এর প্রবেশ করলে সেখানে সাদা পোশাকে থাকা দুইজন আমার ব্যাগ তল্লাশি শুরু করে।পরে ব্যাগে থাকা ৩টি শাড়ি, ২ থ্রিপিস ও বাচ্চা ৩ সেট জামা এ গুলো নেয়া যাবেনা বলে জানান।

পরে ব্যাগটি একটি রুমে নিয়ে ১হাজার টাকা দাবি করেন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা হাসান এর পরেই উক্ত রুমে আসেন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা তারেক এহসান দুইজন মিলে ৮শ টাকা নিয়ে আমাকে ছেড়ে দেন।

একই কথা বলেছেন ঢাকার আমদানি-রফতানি কারক সাইফুল ইসলাম পাসপোর্ট নং এডি৫৬৮২৩৬৮ তিনি জানান বৈধ পথে ভারতে যেয়ে দেশে ফেরার সময় বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক কাস্টমসে ব্যাগ তল্লাশি কালে বাসার জন্য আনা কিছু মালামাল দেখে সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা তারেক এহসান ও মোঃ হাসান ৭শ টাকা দাবি করে পরে ৫শ টাকা রফা হয়।

এ কর্মকর্তারা ডিউটি করা সময় বুকে ন্যাম প্লেট ব্যবহার করার নিয়ম থাকলেও তারা কোনো ন্যাম প্লেট ব্যবহার করে নাই। যা সিসি ক্যামেরা দেখলে সব পাওয়া যাবে। এ ব্যাপারে বেনাপোল আন্তর্জাতিক কাস্টমসে রাজস্ব কর্মকর্তা আব্দুল রাজ্জাক বলেন পাসপোর্ট যাত্রী হয়রানি ও ঘুষ নেওয়ার ব্যাপারে আমার কাছে কেহ অভিযোগ করেনি করলে কমিশনারের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।