ঝিকরগাছায় ৭ মাসের অর্ন্তসত্তা গৃহবধুকে ধর্ষনের অভিযোগ

বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের ঝিকরগাছা শংকরপুর গ্রামে ৭ মাসের অর্ন্তসত্তা এক গৃহবধূকে জোর পুর্বক ধর্ষন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে শংকরপুর গ্রামের রিগানের স্ত্রী। এ ব্যাপারে ঝিকরগাছা থানায় একটি ধর্ষন মামলা করেছে ধর্ষিতার স্বামী।

সরেজমিন তথ্যানুসন্ধানে যেয়ে জানা যায়, গত ৬ জুলাই শুক্রবার রাত ১ টার দিকে উপজেলার শংকরপুর গ্রামের ছদর হোসেনের ছেলে মুক্তার হোসেন (২৮) ঘুমন্ত অবস্থায় ঐ গৃহবধুর মুখ চেপে ধরে ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এর আগে চিৎকার করলে ধারালো ছুরি দেখিয়ে ধর্ষিতার পেটের বাচ্চা কে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয় ধর্ষক মুক্তার আলী।

ধর্ষিতার স্বামী বাড়ী ফিরে বেহুঁশ অবস্থায় তার স্ত্রীকে দেখতে পায়। স্ত্রীর জ্ঞান ফেরার পরে সে সব কিছু জানতে পারে। পরে প্রতিবেশীদের সাহায্য নিয়ে লম্পট মুক্তার কে ধরতে গেলে সে পালিয়ে যায়। ধর্ষিতার স্বামী বলেন রাত ১২ টার দিকে আমি আমাদের বাজারে যাই। সে সময় মুক্তার হোসেন বাজারে ছিলো। এর কিছুক্ষন পরে মুক্তারকে আর দেখা যায়নি।

এবিষয়ে ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ এর সাথে মুঠো ফোনে কথা যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমাদের থানায় এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। যার মামলা নং-১২। অাসামী মুক্তার পলাতক রয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব আসামী মুক্তারকে আটক করার চেষ্টা চলছে বলেও তিনি জানান। এ নিয়ে গ্রামে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। ধর্ষকের পরিবার গোপনে মিমাংসার জন্য বাদীপক্ষ কে চাপ দিচ্ছে।