তালতলীতে সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের হাতে স্কুলের দপ্তরীকে মারধর ও লাঞ্ছিত

বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনা তালতলী উপজেলার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের হাতে ঐ স্কুলে দপ্তরী কবির হোসাইনকে লাঞ্ছিত ও মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার দাবি করে দপ্তরী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার তালুকদারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে দপ্তরীকে মারধর ও গালিগালাজ করেন। গতকাল ৩১ জুলাই ১১টায় স্কুলে এ ঘটনা ঘটে। স্কুলের সহকারী শিক্ষক ডলি আক্তার লতা ভুল করে ৫ম শ্রেনীর এক ছাত্রীর ২৭ রোল এর জায়গায় ৩৩ রোল লিখলো সেটার দায়ভার দপ্তরীর উপর উঠিয়ে প্রধান শিক্ষক বলেন এই ভুল হইছে এটা তুমি দেখো নাই কেন এ নিয়ে কথার কাটাকাটি হয়।

এক পর্যায় ঐ স্কুলের সভাপতি এনায়েত শিকদার এসে ওই দপ্তরী কবির কে কিল, ঘুষি ও লাথি মারেন ও প্রধান শিক্ষক অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করেন । পরে তালতলীর স্থানীয় চিকিৎসক দিয়ে প্রাথমিক ভাবে। ভুক্তভুগি নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরী করিব হোসাইন জানায়, স্কুলের এক জন সহকারী শিক্ষকের ভুলের কারনে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি আমাকে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ ও মারধোর করেন।

তিনি আরও বলেন প্রধান শিক্ষক স্কুলে শিক্ষদের বিভিন্ন কারন দেখিয়ে ছুটি দেয় এবং আমাকে দিয়ে ক্লাশ করায় ও অফিসের যাবতীয় কাজকর্ম করানো হয়। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক আঃ রব বলেন মারধর’র কোনো ঘটনা ঘটেনি একটু কথার কাটাকাটি হয়েছে। সভাপতি এনায়েত শিকদারকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

তালতলী উপজেলা শিক্ষা অফিসার কাজী মনিরুজ্জামান রিপন বলেন আজ আমার দফতরে কবির একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তদন্ত করে দেখা হবে। ও কবিরের মাথায় বেন্ডিস দেখছি।