ইসলামপুরে যমুনার বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্পে ধ্বস

সাহিদুর রহমান,জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় যমুনার বাম তীর সংরক্ষণ প্রকল্পে ধ্বস দেখা দিয়েছে। ৪৫৫কোটি টাকার ব্যায়ে সদ্য নির্মিত এই সংরক্ষণ প্রকল্পটির কাজ নিয়ম বর্হিভূত করায় ওলিয়া অংশে উজান থেকে নেমে আসায় যমুনায় পানির স্রেতের ধাক্কায় ধ্বসে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে। জানা যায়, পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেওয়ানগঞ্জে ফুটানী বাজার থেকে ইসলামপুর হয়ে সরিষাবাড়ি’র পিংনা পর্যন্ত ৪৫৫ কোটি টাকার ব্যায়ে এ প্রকল্পটির কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল রবিবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,উপজেলার নোয়ারপাড়া ইউনিয়নের ওলিয়াঘাট এলাকায় সদ্য নির্মিত এ প্রকল্পটি’র বাঁধের কিছু অংশে সিসি ব্লক বন্যার পানির স্রেতের ধাক্কায় যমুনার গর্ভে চলে যাচ্ছে। এসময় এলাবাসী ক্ষুদ্ধ কণ্ঠে জানান, এ প্রকল্পের কাজ নি¤œ মানের হওয়ায় সামান্য পানি’র ¯স্রেতের ধাক্কায় এ প্রকল্পে ধ্বস নেমেছে। আবার কেউ কেউ বলছেন,অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করায় এটি ভেঙ্গে যাচ্ছে।

Advertisement

ওলিয়া পাইলিং ঘাট এলাকার নূরনবী, সুলতান,আব্দুর রউফ সহ আরো অনেকেই জানান, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের যোগসাজশের মাধ্যোমে নিম্ন মানের কাজ করে প্রকল্পের বরাদ্দকৃত টাকা’র সিংহ ভাগই পকেটে তোলেছে। ওই এলাকার আরো অনেকেই জানান,কাজ তো নিম্ন মানের হয়েছে এটাও ঠিক আছে। তবে রুহুল আমিন, কালাম’রা বিরতিহীন ভাবে বালু উত্তোলন করায় বাঁধে ভাঙ্গন ধরেছে।

এ ব্যাপারে ঠিকাদরি প্রতিষ্ঠান পারিশা ট্রেড সিষ্টেম লিমিটেডে’র মালিক মশিউর রহমানের মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এ সময় তার ফোন বন্ধ ছিল। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান জানান,“কয়েক বার অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ করেছিলাম। তবে রাতের আধারে দুর্ধর্ষ বালু খেকোরা যমুনা থেকে বালু উত্তোলন করায় তাদের দমন করা সম্ভব হয়নি”।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়নের বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী নব কুমার জানান, এটা কোন সমস্যা হবে না। আশা করি, বালির জিও ব্যাগ ফেলানোর প্রস্ততি চলছে। আগামী কয়েক ঘন্টার মধ্যে ভাঙ্গন ঠেকানোর সম্ভব হবে।