জমে উঠেছে তাড়াইলের উপ-নির্বাচনী প্রচারণা

এম এম রুহুল অমিন, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে। কদর বেড়েছে ভোটারদের। প্রার্থীরা ঘুম হারাম করে ভোটারদের দ্বারে-দ্বারে ঘুরছে। আ.লীগ মনোনীত (নৌকা মার্কার) প্রার্থী উপজেলা আ.লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আজিজুল হক ভূঞা মোতাহার, হাজী গোলাম হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা বিএনপি সভাপতি সাইদুজ্জামান মোস্তফা এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী তাড়াইল উপজেলা পুলিশিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব একেএস জামান সম্রাট নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, নৌকা, ধানের শীষ ও আনারস মার্কার ব্যানার, ফেস্টুন ও পোষ্টারে ছেয়ে গেছে উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম। গণসংযোগের পর পথসভায় সভা, সমাবেশ ছাড়াও ভোটারদের বাড়ি-বাড়ি গিয়ে ভোট চাচ্ছেন তিন প্রার্থী। সবার চোখ এখন আসন্ন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদের উপ-নির্বাচনে। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা আ.লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আজিজুল হক ভূঞা মোতাহারকে তৃণমুলের উপজেলা জাতীয় পার্টি সমর্থন করায় তার বিজয় অনেকটাই নিশ্চিত বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ। উন্নয়ন ও অগ্রতির ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে নৌকা মার্কার প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই এমনটাই ধারনা করছেন ভোটাররা।

উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের তৃণমুল আ.লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে তৃণমুল কর্মী সভায় প্রধান অথিতির বক্তৃতায় মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আজিজুল হক ভূঞা মোতাহার বলেন, আগামী উপজেলা পরিষদের চেয়াম্যান পদে নৌকা মার্কাকে জয়যুক্ত করে বাংলাদেশ আ.লীগকে মানুষের সেবায় নিয়োজিত থাকার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান। আ.লীগের হাত ধরেই বাংলাদেশ আজ মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে পৃথীবির বুকে জায়গা করে নিয়েছে। কারণ আ.লীগের হাত ধরেই আমরা স্বাধীন দেশ হিসেবে পৃথীবির বুকে আত্মপ্রকাশ করেছি। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে শক্ত হাতে মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন প্রশাসনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ। তাড়াইল উপজেলার প্রতিটি রাস্তা দিয়ে দশ বছর আগেও চলাফেরা করলে ছিনতাইয়ের স্বীকার হতে হতো। কিন্তু এখন আ.লীগ সরকার গঠন করার পর থেকেই আইন-শৃঙ্খলার উন্নতি হয়েছে।

অপরদিকে বিএনপির (ধানের শীষের) প্রার্থী সাইদুজ্জামান মোস্তফা তার প্রতিটি পথসভায় গণসংযোগকালে বর্তমান সরকারের দুর্নীতি ও দুঃশাষনের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, অর্থনীতিবিদদের মতে শতকরা ২৩ ভাগ মানুষ মানবেতর জীবন-যাপন করছে। বাংলার বীর সন্তানরা স্বাধীনতার আশায় যুদ্ধ করে দেশকে শত্রুর কবল থেকে স্বাধীন করেছে। কিন্তু আমরা এখনো মুক্তি লাভ করতে পারিনি। বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিযার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করে অবিলম্বে তার মুক্তি দাবী করে তিনি আরো বলেন, দেশ আজ গভীর সংকটে নিপতিত, বাকস্বাধীনতা নেই। তারই উদাহরণ দেশের সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া মিথ্যা মামলায় কারাগারে বন্দি। আমরা তার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়ার দাবী জানাচ্ছি।

আনারস মার্কার প্রার্থী আলহাজ্ব একেএস জামান স¤্রাট বলেন, আমি যদি বিজয়ী হতে পারি তাহলে অত্র উপজেলায় আইন-শৃঙ্খলার উন্নতিসহ সার্বিক বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব দিবো। ধানের শীষ মার্কার প্রার্থী সাইদুজ্জামান মোস্তফা বলেন, হাওরা লের দ্বারপ্রান্তে তাড়াইল উপজেলাটি অবস্থিত। অসহায় জনসাধারণের পাশে থেকে শিক্ষাসহ সার্বিক বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব দিবো এবং মাদকমুক্ত একটি উপজেলা উপহার দিবো। নৌকা মার্কার প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আজিজুল হক ভূঞা মোতাহারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি নির্বাচিত হলে মরহুম কামাল উদ্দিন ভূঞা কা নের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করবো এবং দলের তৃণমুল নেতাকর্মী ও জনসাধারণের সহযোগীতায় এই উপজেলাকে মডেল উপজেলায় রূপ দিবো।

উল্লেখ্য, তাড়াইল উপজেলা পরিষদের গত নির্বাচনে উপজেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-আহ্বায়ক কামাল উদ্দিন ভূইঁয়া কা ন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। গত ১৮ জুলাই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ফলে তার পদটি শূন্য ঘোষণা করে কিশোরগঞ্জ জেলার নির্বাচন কর্মকর্তা ও চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মোশারফ হোসেন গত ৩ সেপ্টেম্বর এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনটি জারি করেন।