নীলফামারীতে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ দখল শিক্ষক-শিক্ষার্থী বিপাকে

শাহিনুর রহমান, নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডোমার উপজেলার উত্তর হরিনচড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অর্ধেক মাঠ দখল করে নিয়েছে স্থানীয় এক ব্যাক্তি। মাঠ দখলে নেয়ায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা পড়েছে বিপাকে। সরে-জমিনে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়নের উত্তর হরিণচড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এ সময় স্থানীয় শিক্ষানুরাগী কলিম উদ্দিন ওই বিদ্যালয়ের নামে ৯৬ শতাংশ জমি রেজিষ্ট্রি করে দেন।

ওই জমিনের মালিকানা দাবী করে স্থানীয় মৃত নুর ইসলামের ছেলে মোবাশ্বের আলী মাঠের অর্ধাংশ (প্রায় ৩০ শতাংশ) জমি বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে নেয়। ফলে বিদ্যালয়ের শিশু শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায় চরম ব্যাঘাতের সৃষ্টি হয়েছে। ঘিরে নেয়া জমিনের উপর বিদ্যালয়ের রোপনকৃত গাছ ও শিশুদের খেলাধুলার দোলনা রয়েছে। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের জমিদাতা কলিমউদ্দিনের ছেলে দাতা সদস্য কফিল উদ্দিন জানান, বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সময় আমার বাবা ৯৬ শতাংশ জমি লিখে দেন।

ওই দলিলে স্বাক্ষী হিসেবে মোবাশ্বেরের বাবা মৃত নুর ইসলামের স্বাক্ষর রয়েছে। আমি বাঁধা নিষেধ করার পরও মোবাশ্বের জোরপূর্বক মাঠের অর্ধেক জমি দখল করে নেয়। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হুসনে আরা জানান, এ ঘটনায় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুরকাদের সরকার ইমরান জানান, বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৪৬ বছর পর তিনি জমির মালিকানা দাবী করছেন।

তার কাছে আমি কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি কিছুই দেখাতে পারেননি। এ ছাড়া বিদ্যালয়ের নামে দলিলকৃত জমি বর্তমান হালরেকর্ড, মাঠ পরচা এবং নাম খারিজ বিদ্যালয়ের নামে রয়েছে। আমি উর্দ্ধতন কতৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমির হোসেন জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিনে তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।