পানিতে ডুবে যাওয়া শিশু জীবিত উদ্ধার

রাজীবপুর ও রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলায় পানিতে ডুবে যাওয়া সাকিব নামের দেড় বছরের শিশুকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পরলে ওই শিশুটিকে দেখার জন্য হুমরি খেয়ে পড়ে গ্রামের মানুষ অনেকেই ঘটনাটিকে অলৌকিক মনে করছে। ব্রহ্মপুত্র নদের কড়াই বৈশাল চরের ইউসুফ আলীর পূত্র সাকিব আজ শনিবার দুপুরের দিকে পানিতে ডুবে যায় সাকিব।

এবিষয়ে জানতে চাইলে সাকিবের মা শাপলা বেগম (৩৫) বলেন, সকাল থিকা উঠানে খেলাধূলা করছিল সাকিব। কাজে ব্যাস্ত থাকায় ওর (সাকিবের) দিক খেয়াল করি নাই দুপুরের সময় বাচ্চার কথা মনে হইলে দেহি উঠানে নাই। বাড়ির সব জায়গায় খুইজা না পায়া কান্দাকাটি শুরু করলে গ্রামের প্রতিবেশীরা খোঁজা শুরু করে আমার পোলারে। পরে বাড়ির পাশে ডোবায় সাকিবরে পানিতে ভাসতে দেহে। পানি থিকা তুইলা নিয়া আইসা বুকে মাথা রাইহা দেহি পোলায় আমার বাইচা আছে। তারপর নৌকা যোগার কইরা তারাতারি চিলমারী হাসপাতালে নিয়া আইসা ডাক্তার দেহাইছি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাকিবের পিতা ইউসুফ আলী সাংবাদিকদের জানান, বন্যায় বাড়ির পাশের ডোবায় পানি আসছে। আমার বাচ্চাডা পানিতে পইরা যে বাঁইচা (বেঁচে) আছে আল্লাহ কাছে লাখ শুকরিয়া। চিলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর চিকিৎসক নাজমুল হক বলেন, পানিতে ডুবে যাওয়া সাকিব নামের দেড় বছরের একটি শিশুকে প্রযোজনীয় চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে। আস্তে আস্তে তার শারীরীক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে পানিতে ডুবে বেঁচে যাওয়া শিশুটিকে দেখতে হাপাতালে অনেক মানুষ ভিড় করছে।

পানিতে ডুবে বেঁচে যাওয়ার ঘটনাটি অলৌকিক কিনা এবিষয়ে জানতে চাইলে না তিনি আরও বলেন আমার মনে হয় ওই পানিতে ডেউ ছিল যার কারনে বচ্চাটি একবার পানির নিচে আবার উপরে উঠেছে এবং উপরে উঠার ফলে নিশ্বাস নিতে পেরেছিল বলেই বেঁচে আছে ।