অযত্নে অবহেলায় ধ্বংসের পথে অবিভক্ত বাংলার অর্থমন্ত্রী বাড়ি

কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধিঃ নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় অযত্নে অবহেলায় ধ্বংসের পথে অবিভক্ত বাংলার অর্থমন্ত্রী নলিনী রঞ্জন সরকারের বাড়িটি। সঠিক রক্ষনাবেক্ষন ও সংস্কারের অভাবে পড়ে থাকা বাড়িটি অস্তিত্ব হারাতে বসেছে অবিভক্ত বাংলার অর্থমন্ত্রীর ঐতিহ্যবাহী পৈত্রিক বাড়িটি। বাংলার অর্থমন্ত্রীর বাড়িটি কেন্দুয়া উপজেলার ১১ নং চিরাং ইউনিয়নের সাজিউড়া গ্রামের কালের সাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে।

এলাকার স্থানীয় প্রবীণ লোকদের সাথে কথা বলে জানা যায় অর্থমন্ত্রী নলিনী সরকার ও তার অন্য সহোদরেরা স্বাধীনতা যুদ্দের অনেক আগেই পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে চলে যান, এবং দেশ ত্যাগ করার সময় তারা কেন্দুয়া উপজেলায় নিজ গ্রামে রেখে যান ৩৫০ একর ফসলী জমিসহ বিশাল পুকুর এবং কয়েক কোটি টাকার স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ।

স্বাধীনতার আগে ও পরে এসমস্ত সম্পদ সরকারি সম্পত্তি হিসেবে ষোষিত হওয়ার পর স্থানীয় লোকজন নলিনী রঞ্জন সরকারের রেখে যাওয়া কয়েক একর জমি, পুকুর স্থানীয় সরকারের কাছ থেকে লিজ নিয়ে বসবাস ও চাষাবাদ করে আসছে অনেকেই। শত বছরের এই বৃটিশ আমলের এই বাড়িটি ঘুরে ফিরে দেখা যায়, দেয়াল ও ছাঁদ থেকে খসে পড়ছে প্লাস্টার। লতাপাতা শেকড়- বাকড়ে ক্রমশ বন্দি হয়ে বিলীন হতে চলেছে বাড়িটির অস্তিত্ব।

স্থানীয় ইউ.পি চেয়ারম্যান মাহবুব আলম খান জরিপ এর সাথে এ প্রতিনিধির কথা হলে তিনি বলেন, ইতিহাসের সাক্ষী নলিনী রঞ্জন সরকারের পৈত্রিক ঐতিহাসিক এই বাড়িটি সরকারিভাবে সংস্কার ও সংরক্ষন করা খুবই জরুরী। স্থানীয় সচেতনমহল ও এলাকাবাসীর জানান এভাবে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে থাকলে নলিনী রঞ্জন সরকারের স্মৃতিটুকুও কিছুদিন পরে খুজে পাওয়া যাবেনা। তাই আমরা এলাকবাসীর স্থানীয় সরকার বা সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ যদি এই বাড়িটির সংস্কারের উদ্যোগ নেন তাহলে ঐতিহ্যবাহী এই বাড়িটি হতে পারে আমাদের কেন্দুয়ার অন্যতম পর্যটক কেন্দ্র।