ইসলামপুরে যমুনার বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্পে ধ্বস, হুমকির মুখে ১৫০ পরিবার

সাহিদুর রহমান, জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় যমুনার বাম তীর সংরক্ষণ প্রকল্পে আবারো ধ্বস দেখা দিয়েছে। ৪৫৫ কোটি টাকার ব্যায়ে সদ্য নির্মিত এই সংরক্ষণ প্রকল্পটি টানা বৃষ্টিপাত ও যমুনার গভীরতার মূল চ্যানেলটি কাছে আসার কারণে বৃহস্পতিবার বাঁধের শশারিয়াবাড়ী বেড়পাড়া অংশের ১৫০ফুট বাঁধ ভেঙ্গে গেছে।

এর ফলে হুমকির মুখে পড়েছে যমুনাপাড়ের দেড়শতাধিক পরিবার। ভাঙ্গনের আতংক বিরাজ করছে যমুনার তীরবর্তী মানুষের মাঝে ।
জানা যায়, পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেওয়ানগঞ্জে ফুটানী বাজার থেকে ইসলামপুর হয়ে সরিষাবাড়ি’র পিংনা পর্যন্ত ৪৫৫ কোটি টাকার ব্যায়ে এ প্রকল্পটির কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,উপজেলার পাথর্শী ইউনিয়নের শশারিয়াবাড়ী বেড়পাড়া গ্রামে সদ্য নির্মিত এ প্রকল্পটি’র বাঁধের কিছু অংশে হঠাৎ সিসি ব্লক দেবে গিয়ে যমুনার গর্ভে চলে যাচ্ছে। এসময় এলাবাসী ক্ষুদ্ধ কণ্ঠে জানান, এ প্রকল্পের কাজ নিম্ন মানের হওয়ায় ও অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করার কারণে এ প্রকল্পে ধ্বস নেমেছে।

শশারিয়াবাড়ী বেড়পাড়া গ্রামের আজাদ, বিপুল, রাজু, হেলালসহ আরো অনেকেই জানান, দীর্ঘ দিন থেকে যমুনা থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করার কারণে এ সংরক্ষণ বাঁধের সিসি ব্লক দেবে যাচ্ছে। ওই যমুনাপাড়ের আতংকিত পিয়ারা, মিনু বেগম, সাহারা বেওয়া জানান, বৃহস্পতিবার মধ্যে রাইতে ভরভর শব্দ শুনে ঘুম থেকে জাইগা ওঠি দেহি বাধ নিচ মুহে (মুখে) যাতাছে (যাচ্ছে)। তারা তারি জিনিস পত্র সরাইয়া নিয়ে যাই।

তারা আরো জানান, ভাঙ্গন রোধে জরুরীভাবে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা না হলে আমাদের ঘর-বাড়ি, ফসলি জমিসহ আরো অনেক এলাকা যমুনা গর্ভে চলে যাবে। এ ব্যাপারে পাথর্শী ইউপি’র চেয়ারম্যান ইফতেখার আলম বাবলু জানান, একটা মাত্র চ্যানেল অর্থ্যৎ আমাদের এ নদী দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় ১২০-১৭০ ফুট গভীরতা হওয়ার কারণে এ ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এ বাঁধের ভাঙন রোধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে বাঁধটির যমুনা গর্ভে বিলিন হওয়ার আশংকা রয়েছে।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়নের বোর্ডের উপ সহকারি প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, মূল চ্যানেলটি দূরে ছিল,এটি কাছে আসার কারণে বামতীর সংরক্ষণ বাঁধের কয়েকটি স্পটে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। এ ভাঙ্গন রোধের প্রতিরোধ করার জন্য জিও ব্যাগ ড্রাম্পিং এর প্রস্ততি চলছে।