ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মুক্তবুদ্ধির চর্চায় অন্তরায়

রাবি প্রতিনিধি: মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার সাথে সাংঘর্ষিক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ধারাসমূহ বাতিলের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১ টায় বিশ^বিদ্যালয়ের রবীন্দ্র ভবনের সামনে মিডিয়া চত্বরে এ মানববন্ধন করেছে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ।

মানববন্ধনে বিভাগের সভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমরা মনে করি বিশ^বিদ্যালয় হল মুক্ত জ্ঞান চর্চার একটি অঙ্গন। এখানে আমরা যে জ্ঞান বিতরণ করি, মুক্ত বুদ্ধির চর্চা করি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এই পথে একটি অন্তরায়। বিভিন্ন মানবাধিকার ও সামাজিক সংগঠনসহ যারা বিশ^াস করে সাংবাদিকতা চর্চায় উন্মুক্ত পরিবেশ দরকার তারা সকলেই এই আইনের ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছেন। পুরাতন যুগের ধারার মতো করে বর্তমান ডিজিটাল যুগে আইনগুলোকে চর্চা করলে সেগুলো রাষ্ট্র ও মানুষের জন্য মঙ্গল হবে না।

এ সময় তিনি আরো বলেন, বর্তমানে এই আইনের যেমন অপব্যবহার হচ্ছে তেমনি ভবিষ্যতেও হবে। সাংবাদিকতা চর্চা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার ক্ষেত্রে এই আইনের বেশ কিছু ধারা পরিবর্তনের প্রয়োজন বলে মনে করি। অন্যান্য যেসব বিশ^বিদ্যালয় রয়েছে তাদেরও দায়িত্ব হল এ ব্যাপারে আলোচনা করা, প্রতিবাদ করা ও সরকারকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া। পরবর্তীতে আমরা এই আইন নিয়ে আরও পর্যালোচনা করব বলে আশা করছি।

বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মামুন আ. কাইয়ুমের স ালনায় মাননববন্ধনে বক্তব্য দেন বিভাগের অধ্যাপক ড. প্রদীপ কুমার পা-ে, সহযোগী অধ্যাপক মশিহুর রহমান, ড. মাহাবুবুর রহমান, সহকারি অধ্যাপক কাজী মামুন হায়দার, মোছা. দিল আফরোজা খাতুন, আব্দুল্লাহহীল বাকীপ্রমুখ। মানববন্ধনে বিভাগের প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল – ২০১৮ পাশ হয়। এ নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক। ৮ অক্টোবর মহামান্য রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের মাধ্যমে এই বিল কার্যকর হয়।