মানুষ ভোজলে সোনার মানুষ হবি

রুবেল ইসলাম, রাজশাহী প্রতিনিধি: সাধক লালন ফকির এর ১২৮তম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষ্যে নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে (এনবিআইইউ) আলোচনা সভা ও লালন গীতি উসবের আয়োজন করা হয়। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০টায় ইউনিভার্সিটির কনফারেন্স রুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট লোকসাহিত্য বিশেষজ্ঞ এনবিআইইউ’র উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহম্মদ আবদুল জলিল।

প্রবন্ধে তিনি লালন গানের পাঠ বিশ্লেষণের মাধ্যমে লালন দর্শনের কতিপয় মৌলবার্তা উপস্থাপন করেন। অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট লোকসাহিত্য গবেষক, শিক্ষাবিদ এনবিআইইউ’র উপাচার্য প্রফেসর ড.আবদুল খালেক প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে বলেন, ‘লালন অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে মহাত্মা লালনের তিরোধান উপলক্ষে এ ধরনের অনুষ্ঠান সময়োপযোগী।

সভাপতির ভাষণে ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক লালন জীবনের ইতিহাসের উপর আলোকপাত করেন। তিনি তাঁর পর্যবেক্ষণ তুলে ধরে বলেন, লালনের জীবনের আধ্যাত্ম চিন্তার বিকাশ অলৌকিক ও বিস্ময়কর। তিনি বলেন, মানুষকে সোনার মানুষ হতে হলে লালনের দর্শন চর্চার প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, লালন নিজেই একটি পরিসর ও প্রতিবেশ, সিন্ধু থেকে বহ্মপুত্র পর্যন্ত সকল লোক আধ্যাত্ম ধারা লালনে এসে মিশেছে। তিনি আবহমান বাঙালীর ধর্ম দর্শনের প্রধান দার্শনিক ও মনোবাস্তবতার প্রধান ব্যাখ্যাকার। ‘বর্তমান’-এর সাধক ফকির লালন মরমী বাঙালীর আগামীদিনের পথ প্রদর্শক। অনুষ্টানে প্রবন্ধের উপর সমালোচনা করেন ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ইয়ারফ আলী লর্ডস।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্টস এ্যান্ড হিউম্যানিটিস স্কুলের ডিন এবং বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, ইতিহাস ও সভ্যতা ডিসিপ্লিনের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. শেখ রজিকুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন এনবিআইইউ’র আইন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. হাবিবুর রহমান, চীফ কো-অর্ডিনেটর এবং রাবির বাংলা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড.পি.এম.সফিকুল ইসলাম, প্রফেসর ড. আবুল কাশেম, এনবিআইইউ’র রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মকসুদুর রহমান, ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. আব্দুর রউফ, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক জোনাব আলী, প্রক্টর আজিবার রহমানসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে মনোঙ্গ লালন গীতি উৎসবের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান স ালনায় ছিলেন শিক্ষক ড. নূরে-ই এলিস ও সালাউদ্দিন সায়মুম তুহিন।