রাবির ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি, সাবেক শিক্ষার্থী গ্রেফতার

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার সময় এক শিক্ষার্থীকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরে তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রণী খাতুন এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন। এর আগে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত চলা ‘বি’ ইউনিটের অবাণিজ্য শাখার পরীক্ষা চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ভবনের ৪২৫ নাম্বার কক্ষ থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটককৃত মুনসুর রহমান রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মনিগ্রামের নিজাম উদ্দীনের ছেলে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ব্যবসায় অনুষদভুক্ত ‘অবাণিজ্য’ শাখার পরীক্ষা শুরু হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ভবনের ৪২৫ নম্বর কক্ষে আল-আমিন নামের এক ভর্তিচ্ছুর প্রক্সি দিচ্ছিলেন মুনসুর। আমি ওই কক্ষটি পরিদর্শন করার সময় তার গতিবিধি সন্দেহ হয়।

ওই কক্ষের দায়িত্বরত শিক্ষকদের নিয়ে মুনসুরের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করি। এসময় তার ভর্তি পরিক্ষা তাক্ষনিকভাবে বন্ধ করে দিয়ে পাশে শিক্ষকের রুমে নিওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক জিজ্ঞাসায় প্রক্সির বিষয়টি প্রমাণিত হলে তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রনী খাতুন এসে তাকে আবার জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে বিষয়টি স্বিকার করে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রনী খাতুন মুনসুরকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়।