হারিয়ে যাচ্ছে কাবাডি খেলা

তোফায়েল পাপ্পু, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার: আধুনিকতার ছোঁয়া ও কালের বিবর্তনে শিশু কিশোরদের মধ্যে আসছে নতুন নতুন খেলা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ব্যবহার ও ঘরে ঘরে ভিডিও গেমের দৌরাত্ম্যে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী সব ধরনের খেলাধুলা। মহাকালের পাতা থেকে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ খেলা। বই পুস্তকে খেলার নাম দেখলেও বাস্তবে খেলার সুযোগ হয়ে উঠেনি এমন শিশুর সংখ্যা বাড়ছেই। আর হারিয়ে যাওয়া খেলায় যুক্ত হয়েছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী কাবাডি ( হাডুডু) খেলার নামও। যা আমাদের দেশের জাতীয় খেলা।

এই হাডুডু খেলাকে বাঁচিয়ে রাখতে প্রতিবছরের ন্যায় এবারো মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে আয়োজন করা হয়েছে ঐতিহ্যবাহী এই খেলাটির।
শুক্রবার সকালে উপজেলার দক্ষিণ উত্তরসুর এলাকায় অনুষ্ঠিত এ খেলায় অংশ নেয় বিবাহিত ও অবিবাহিত দুটি দল। দুটি দলে নয়জন করে মোট ১৮ জন খেলোয়ার। বিবাহিত দলে দলনেতা হিসেবে ছিলেন নুরুল ইসলাম, অবিবাহিত দলের দলনেতা জাফর খাঁন। খেলাটি পরিচালনা করেন মো. ঝুমন মিয়া ও মৃত্যুঞ্জন পাল।

খেলার আয়োজক কমিটির সদস্য সৈকত কর বলেন, প্রতিটি দেশের একটি জাতীয় খেলা থাকে। আমাদের জাতীয় খেলা হাডুডু বা কাবাডি। কিন্তু কালক্রমে এই খেলার কদর দিন দিন হারিয়ে যেতে বসেছে। আগে স্কুল ভিত্তিক আন্তঃস্কুল বা থানা কাবাডি প্রতিযোগিতার আয়োজন চোঁখে পড়ত। বর্তমানে সেটাও চোখে পড়ে না। নতুন প্রজন্মের কাছে কাবাডি খেলাটি অপরিচিত হয়ে উঠছে। বিলুপপ্তপ্রায় এই খেলাটি ধরে রাখার জন্যই আমরা প্রতিবছর কাবাডি (হাডুডু) খেলার আয়োজন করা হয়। নতুন প্রজন্ম যাতে এই খেলা সম্পর্কে জানতে পারে এ উদ্যেশ্যেই এই খেলার আয়োজন।