বগুড়ায় চলন্ত সিএনজিতে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা

0

খালিদ হাসান,বগুড়া প্রতিনিধিঃ বান্ধবীর বাড়িতে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ভাড়ায় চালিত সিএনজিতে ওঠে এক কলেজ ছাত্রী। সুন্দরী নারী দেখেই সুযোগ নেয় ওষুধ কোম্পানীর একজন বিক্রয় প্রতিনিধি। সে একই সিএনজিতে ছাত্রীর পাশে বসে পড়ে। এটি গত ৬ নভেম্বর সন্ধ্যার ঘটনা।

সিএনজি চালকের পেছেনের সিটে বসে ছিল ওরা দুইজন। কিছুক্ষন পরেই ফাঁকা সড়কে পৌঁছতেই চলন্ত সিএনজির মধ্যেই কলেজ ছাত্রী মুখ ঝাপটে ধরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দেয় ওষুধ কোম্পানীর ওই ব্যক্তি। এরপর চলন্ত সিএনজিতেই জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে এবং কলেজ ছাত্রীর সাথে ধস্তাধস্তি হয়। বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত-২ এ দায়েরকৃত মামলার বিবরণে এসব ঘটনা উল্লেখ করেছেন ওই কলেজ ছাত্রী।

এঘটনায় বুধবার (২১ নভেম্বর) অভিযুক্ত মাসুদ করিম লিটু (৪০) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। সে একটি ওষুধ কোম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধি ও জেলার ধুনট সদরের পশ্চিম ভারণশাহী গ্রামের আকতার হোসেনের ছেলে। বগুড়ার শেরপুর টাউন কলোনীর বাসিন্দা ও বগুড়া শহরের এক মেডিক্যাল টেননোলজির প্যাথলোজি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী গত ১২ নভেম্বর আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং ২৭৬।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ নভেম্বর সন্ধ্যার সিএনজি যোগে বগুড়া শহর থেকে ধুনট উপজেলার পিরহাটি গ্রামে বান্ধবীর বাড়িতে এক অনুষ্ঠানে যাচ্ছিল ওই কলেজ ছাত্রী। একই সিএনজিতে ওই ছাত্রীর পাশে বসে মাসুদ করিম লিটু। সিএজিটি উপজেলার সোনাহাটা-গোসাইবাড়ী সড়কের চিকাশী এলাকার ফাঁকা সড়কে পৌঁছলে মাসুদ করিম লিটু ওই ছাত্রীর শরীরে হাত দিয়ে যৌন নিপীড়ন করে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ধুনট থানার ওসি (তদন্ত) ফারুকুল ইসলাম জানান, আদালতে দায়ের করা বাদীর আরজি থানায় মামলা হিসেবে রেকর্ডভুক্ত এবং আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.