এটা কেমন নির্বাচন? নির্বাচনে অংশ গ্রহন করা কি অপরাধ? : মিল্টন

সাব্বির হোসাইন আজিজ, মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ মাদারীপুর-২ নির্বাচনী এলাকার বিএনপির প্রার্থী মিল্টন বৈদ্যর রাজৈর উপজেলার আম গ্রামের বাড়িতে মঙ্গলবার রাতে হামলা চালিয়েছে জাহিদুর রহমান টিপু ও তার অনুসারীরা। এসময় বাড়িতে ভাঙচুর এবং লুটপাট চালায়। তাদের হামলায় বিএনপির কমপক্ষে ১০ কর্মী আহত হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, হামলা চালিয়ে ঘরের ভেতরের আসবাবপত্র, টিভি, ফ্রিজ ভাঙচুর করে। এসময় ঘরের ভেতরে নগদ টাকা, স্বর্নালঙ্কার লুটপাট চালিয়ে নিয়ে যায় ও তার ব্যবহৃত গাড়িটি ভেঙ্গে ফেলে। আহতদের স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বুধবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে মিল্টন বৈদ্য বলেন, এটা কেমন নির্বাচন? নির্বাচনে অংশ গ্রহন করা কি অপরাধ? স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতা ও আমগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুর রহমান টিপু নেত্বতে তার ক্যাডাররা দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাট ও ভাঙচুর করে এবং আলমারী থেকে নগদ আড়াই লাখ টাকা নিয়ে যায়।

এসময় আমি প্রশাসনের সহযোহিতা চাইলে তারা সহযোগিতা করেনি। আমার কর্মীরা চমর আতঙ্কের মাঝে আছে। এটা কেমন নির্বাচন? নির্বাচনে অংশ গ্রহন করা কি অপরাধ? আমার কর্মীরা প্রতিনিয়ত হামলা মামলার শিকার হচ্ছে। এর আগে আমাকে ট্রাক চাপা দিয়ে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে কিন্তু প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

বিএনপিন প্রার্থী মিল্টন বৈদ্যর মা চঞ্চলা রানী বলেন, মানুষের সর্বশেষ আশ্রায় স্থল বাড়ি সেখানেও যদি হামলা হয় তাহলে কোথায় গিয়ে আশ্রায় নেব। আমরা কি আওয়ামীলীগের ভয়ে দেশ ছেড়ে চলে যাবো। আমরা সংখ্যা লঘুরা দেশ ছেড়ে চলে গেলে কি আওয়ামীলীগের সুবিধা হয়? আমাদের জমি জমা দখল করে নিতে পারবে।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল মোর্শেদ বলেন, ঘটনা স্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।